আজ জননী দিবস…

“মাগো তোমার মত আপন
কেউ নাই গো দুনিয়ায়
খোকন বলে মধুর করে
কেউ ডাকেনা আমায়,
বলেনা কেউ মানিক আমার কই
মাগো তুমি ছাড়া এই ভুবনে
কেমনে বেঁচে রই।”
– মা পৃথিবীর নিরাপদ আশ্রয়। মায়ের আসন সবার উপরে। মাকে নিয়ে মহান আল্লাহ্‌ পাক এবং নবী মোহাম্মদ (স:) অনেক মর্যাদাবান বানী ও নির্দেশ দিয়েছেন। মায়ের অবদান অসীম যার কোন শেষ নেই। মাকে নিয়ে সারা বিশ্বে অনেক সাধক, দার্শনিক কত  কবি লিখেছেন কত কাব্য, গল্প, গান। ‘মা’ – ছোট্ট একটা শব্দ, কিন্তু কি বিশাল তার পরিধি! সৃষ্টির সেই আদিলগ্ন থেকে মধুর এই শব্দটা শুধু মমতার নয়, ক্ষমতারও যেন সর্বোচ্চ আধার৷ মার অনুগ্রহ ছাড়া কোনো প্রাণীরই প্রাণ ধারণ করা সম্ভব নয়৷ তিনি আমাদের গর্ভধারিনী, জননী৷ আজ ‘মা দিবস’। ইতিহাস অনুযায়ী বিশ্বের প্রায় সকল দেশেই এ দিনটি শ্রদ্ধার সাথে পালন করা হয়।
মায়ের সম্মান এবং মাকে ভালোবাসার কৃতঋণ স্বরূপ এই দিন। ১৯১২ সালে আনা জার্ভিস মাদার’স ইন্টারন্যাশনাল অ্যাসোসিয়েশন (আন্তর্জাতিক মা দিবস সমিতি) স্থাপন করেন। সেই থেকেই সারা বিশ্বে মে মাসের ২য় রবিবার ‘মা দিবস’ পালিত হয়। তবে কিছু কিছু দেশে অন্যদিন বা মাসে ‘মা দিবস’ পালিত হয়। “মায়ের স্নেহের প্রতিদান, মায়ের এক বিন্দু ঋণ কোন কিছুর বিনিময়ে শোধ হবার নয়। মা হল সকল ব্যথা নিরবে সয়ে সন্তানের হাসিমুখ দেখা। মায়ের গর্ভ থেকে শুরু করে পৃথিবীর পান্থশালায় মা সবসময় ছাঁয়া।
“মাগো তোমায় লাখো লাখো সালাম
তোমার দেহেই দশমাস দশদিন ছিলাম,
তোমায় কাঁদিয়ে এ পৃথিবীতে এলাম
তোমায় পেয়ে স্রষ্টার মহা নেয়ামত পেলাম।”
অলংকরন – গোলাম সাকলাইন…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: