লোকগান সংরক্ষণে ফোক সম্রাজ্ঞী ‘মমতাজ’…

” মায়ের কান্দন যাবত জীবন
দুইচার মাস বোনের কান্দনরে..,
ঘরের পরিবারের কান্দন
কয়েক দিন পর থাকেনা
দুঃখের দরদী আমার
জনম দুঃখী মা।”

– লোক সঙ্গীতের সুনামধন্য শিল্পী মমতাজ।
“মায়ের কান্দন”এই গানটি পরশ পাথরের মতো মমতাজের সঙ্গীত জীবনকে সফলতার উচ্চ শিখরে পৌঁছে দেয়। এই গানটি প্রকাশের পর পরই দেশের সব শ্রেণীর মানুষ আবিষ্কার করতে থাকেন কে এই মমতাজ!! “মায়ের কান্দন” তথা “রংয়ের বা
জার” এ্যালবাম প্রকাশের আগেই গ্রামগঞ্জের কিছু মানুষের কাছে পরিচিত ছিলো মমতাজ। তখন তিনি দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে গ্রাম -গঞ্জের বাউল সম্প্রদায়ের সাথে গুরু শিষ্যর সাথে মঞ্চে পালাগান এবং ভাব বৈঠকি গান করতেন। মমতাজ এর পিতা, প্রয়াত মধু বয়াতি একজন বাউল সাধক ছিলেন। তাই শিশু থেকেই তিনি সুরের স্পর্শতায় বেড়ে উঠেন। এবং দেশের অন্যতম বাউল সাধক, কবি প্রয়াত মাতাল রাজ্জাক দেওয়ান। রাজ্জাক দেওয়ান এ দেশের বাউল সম্প্রদায়ের জন্য রেখে গেছেন অসংখ্য বাউল গান এবং বন্দনা গান। মমতাজ মাতাল রাজ্জাকের যোগ্যা শিষ্যত্ব লাভ করেন। এবং গ্রাম গঞ্জের মানুষের মাঝে তিনি মাতাল রাজ্জাকের গান গেয়ে পরিচিতি অর্জন করেন। পরবর্তীতে তিনি বাউল সাধক আব্দুর রশিদ সরকারের কাছে সঙ্গীত বিদ্যালাভ করেন। এক সময় মমতাজের মমতা ভরা কন্ঠ আর মাটির সুর স্পর্শ করে বিটিভির জনপ্রিয় অনুষ্ঠান ইত্যাদির নন্দিত নির্মাতা, ‘হানিফ সংকেত’ এর মন। হানিফ সংকের এর সহযোগীতায় ইত্যাদির মাধ্যমে তিনি প্রথম টেলিভিশনে গান করেন। আর সেই গান দেশের গান প্রিয় মানুষদের মুগ্ধ করেন এবং বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় বাউল সাধক ও গীতিকবি “শাহলম সরকার “এর ভিন্ন ধারার গান গেয়ে তিনি ব্যাপক ভাবে শ্রোতামহলে প্রশংসিত হতে থাকে। শাহলম সরকারের গান গুলোই মমতাজের সঙ্গীত জীবনের সফলতার সবচেয়ে বড় অবদান। এবং দেশের সুনামধন্য ও বিখ্যাত সঙ্গীত পরিচালক, “আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল, শওকত আলী ইমন ও ইমন সাহার সহযোগীতায় তিনি চলচ্চিত্রে গান করেন। এর পর আর পিছু ফিরে তাকাতে হয়নি মমতাজকে।

অডিও এবং চলচ্চিত্রে সমানতালে গান করতে থাকেন তিনি। এ পর্যন্ত তিনি প্রায় সাতশত একক এ্যালবাম করেছেন এবং গান সংখ্যা সাত হাজারের বেশী। দেশের সঙ্গীত ইতিহাসে এক জীবনে আর কোন শিল্পী এত গান করেছেন কিনা তার রেকর্ড নেই। দেশের গান প্রিয় মানুষ মমতাজের দরদী কন্ঠ আর মাটির সুরে মুগ্ধ হয়ে উপাধি দিয়েছেন, “মমতাজ ফোক সম্রাজ্ঞী”। তিনি গান গাওয়ার পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক কল্যাণকর কাজে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন। এবং তিনি বিভিন্ন বিজ্ঞাপনে সফলতার সঙ্গে কাজ করছেন। গ্রামীণ ফোনের এক বিজ্ঞাপনে অনেক যন্ত্রশিল্পীদের সাথে গান করে এবং অভিনয়ের মাধ্যমে শ্রোতা মহলে বেশ আলোচিত হন।
এখন তিনি একটি বিরহের গানের এ্যালবাম এবং প্রাচীন লোক সঙ্গীতের এ্যালবাম প্রকাশের কাজ করছেন। এবং তিনি পুরানো লোকসঙ্গীত গানের পাণ্ডু লিপি সংগ্রহ করছেন। এবং শ্রোতাদের সামনে তুলে ধরার প্রয়াস করছেন। দেশের বিখ্যাত সঙ্গীত পরিচালক, “আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল” তার একটি এ্যালবাম আলোচনায় বলেন, মন প্রান আর হৃদয় দিয়ে গান করে মমতাজ”। আমরা মমতাজের দীর্ঘজীবন কামনা করি। -আমিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: