শিল্পী কিরণ চন্দ্র রায় এর পদাবলী কীর্তন এ্যালবাম ‘মেঘ যামিনী’-র মোড়ক উন্মোচন…

ডেইলি স্টার ও বেঙ্গল আর্টস প্রিসিঙ্কটে বেঙ্গল ফাউন্ডেশন নিবেদিত শিল্পী কিরণ চন্দ্র রায় এর পদাবলী কীর্তন এ্যালবাম ‘মেঘ যামিনী’ প্রকাশনা অনুষ্ঠান হয়ে গেল গতকাল ২৯শে অক্টোবর ২০১৬ শনিবার সন্ধ্যায়। বেঙ্গল ফাউন্ডেশন গত ২৫ বছর ধরে রবীন্দ্রসঙ্গীত, নজরুলসঙ্গীত, তিন কবির গান (অতুল-দ্বিজেন্দধ-রজনীকান্ত), পুরনো দিনের গান, আধুনিক বাংলা গান, লোকগান, দেশের গান, গণসংগীত, শাস্ত্রীয়সংগীত, যন্ত্রসংগীত ও গজলসহ বাংলা গানের নানা গতিপ্রকৃতিকে মানসম্পন্ন রেকর্ডিংয়ে ধারণ করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় শিল্পী কিরণ চন্দ্র রায়ের কন্ঠে ধারণ করা প্রাচীন ভক্তিগীতি পদাবলী কীর্তনের সংকলন ‘মেঘ যামিনী’ এ্যালবামটি প্রকাশিত হলো। এ্যালবামের মোড়ক উন্মোচন করেন বিশিষ্ট সাংবাদিক ও কবি আবুল মোমেন। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক লুভা নাহিদ চৌধুরী।

মোড়ক উন্মোচন পর্ব শেষে শিল্পী কিরণ চন্দধ রায় ‘আজু রজনী হম ভাগে গমওল’ গানটি দিয়ে সঙ্গীত পরিবেশন শুরু করেন, এরপর শিল্পীর ‘সুখের লাগিয়া এ ঘর বাঁধিনু’ সহ বেশকিছু গান পরিবেশন করেন। শিল্পীর সঙ্গে যন্ত্রানুষঙ্গে ছিলেন বাঁশিতে মনিরুজ্জমান, বেহালায় সুনীল চন্দ্র দাস, খোলে গৌরব সরকার, করতালে একরাম হোসেন। কীর্তন বাঙালি সংস্কৃতির এক বিশিষ্ট সংগীতশৈলী। ঈশ্বরের নাম, গুণ ও লীলা বিষয়ক পদাবলী সুর ও তালবদ্ধ হয়ে উচ্চকন্ঠে গীত গায়নরীতিই কীর্তন। কীর্তন প্রধানত দুই প্রকার নামকীর্তন এবং লীলাকীর্তন। সাধারনত রাধাকৃষ্ণের লীলা ও গৌরাঙ্গের জীবনগাঁথার বিভিন্ন পর্যায় অবলম্বনে কীর্তন রচনা করা হয়। কীর্তনের তাল রচনায় স্বকীয়তা আছে, কীর্তন করতাল ও খোল সহযোগে গীত হয়। পদ রচনা, সুর ও তাল যোজনার ক্ষেত্রে নরোত্তম ঠাকুর(১৫৩১-১৫৮৭) এর নেতৃত্বে পদাবলী কীর্তন গায়নরীতির প্রচলন হয়।
অলংকরন – মাসরিফ হক…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: