Press "Enter" to skip to content

বিশুদ্ধ গানের গীতিকার নীহার আহমেদ…

সঙ্গীত প্রিয় শ্রোতারা সাধারনত যেকোন গানের কন্ঠশিল্পীকেই চিনেন বা জেনে থাকেন। কিন্তু একটি গানকে শ্রোতাদের গ্রহনযোগ্য করে তোলার জন্যে গানের পেছনে যারা তাদের মেধা, দক্ষতা ও বিচক্ষনতার মাধ্যমে শ্রোতা সম্মূখে নিয়ে আসেন তাদের কথা খুব কমই জানেন। বিশেষ করে গানের গীতিকার, সুরকার ও সঙ্গীত পরিচালক। তেমনি একজন গানপ্রিয় ব্যক্তিত্ব ও গানের পেছনের মানুষ নীহার আহমেদ। তিনি হলেন একজন বিশুদ্ধ গানের গীতিকবি। তার লেখনি গানে শ্রোতাদের হৃদয়গ্রাহী করে থাকে। তার লেখা গান রুনা লায়লা, সাবিনা ইয়াসমিন সহ দেশের জনপ্রিয় অনেক শিল্পীই গেয়েছেন। বর্তমান সময়ে যে ক’জন গীতিকবি ভাল কথামালা দিয়ে পছন্দের তালিকায় ও শ্রোতাদের মুগ্ধ করতে সক্ষম হয়েছেন তাদের মধ্যে একজন হলেন নীহার আহমেদ।

অভিমান করে প্রায় এক দশক পর গানে ফিরে আবারও আলোচনা নীহার আহমেদ। সম্প্রতি প্রকাশ হওয়া তার লেখা, বেলাল খানের সুরে, মীর মাসুমের সঙ্গীতায়জনে, প্রখ্যাত কন্ঠশিল্পী সামিনা চৌধুরীর গাওয়া ‘পিপীলিকার মতোন উইড়া মরবো / পুইড়া তোর পিরিতের আগুনে, শীর্ষক গানটি ইতিমধ্যে প্রশংসিত হয়েছে। অডিও প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান সি.এম.ভি’র ব্যানারে প্রকাশিত হয়েছে ‘একই-স্বপ্ন’ এ্যালবামে। এ্যালবামটি তিনটি গান দিয়ে সাজানো এবং এ্যালবামের অন্যান্য শিল্পীরা হলেন ফাহমিদা নবী ও রমা।

মিক্সড অ্যাএ্যালবাম ‘গদ্য-পদ্য’র মাধ্যমে ২০০৬ সালে নীহার আহমেদ সঙ্গীত জগতে গীতিকার হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন। গদ্য-পদ্য মিক্সড এ্যালবামে এস.আই টুটুল, আলম আরা মিনু, মনিটর ব্যান্ডের শামীম, এস.আই সন্টু’র চারটি গান লিখেন। প্রথম প্রকাশিত ‘গদ্য-পদ্য’ এ্যালবামরে লেখা গানের মধ্যে এস.আই টুটুল-এর গাওয়া ‘তুমি গদ্য বোঝ পদ্য বোঝ/ দুনিয়াদারী সবই বোঝ/ শুধু বোঝার বাকী আছে আমাকে – এমন কথার এ গানটির মাধ্যমে তিনি সিটিসেল-চ্যানেল আই মিউজিক অ্যাওয়ার্ডের সেরা গীতিকারে মনোনয়ন পেয়ে চমকে দেন সঙ্গীতাঙ্গনে। তারই ধারাবাহিকতায় একই বছরে আসিফ আকবর এর একক এ্যালবাম ‘হৃদয়ে রক্তক্ষরন’ এ ‘কোন কিছু হারালে খুঁজে পাওয়া যায়ন/ বিশ্বাস হারালে যায়না পাওয়া’ গানটি লিখে আলোচিত হয়ে উঠেন। তারপর এক একে রুনা লায়লা, সাবিনা ইয়াসমিন, এন্ডুকিশোর, মনির খান, এস.ডি রুবেল, রিজিয়া পারভীন প্রমুখ শিল্পীর জন্য। ২০০৬ সালেই বাংলাদেশ টেলিভিশনের গীতিকার হিসেবে তালিকাভুক্ত হয়ে এই বিশুদ্ধ গানের গীতিকার নীহার আহমেদ প্রায় অর্ধশতাধিক গান লিখেন বিভিন্ন শিল্পীদের জন্য। তারপর কোন এক অজানা অভিমান চেপে প্রায় বছর দশেক গান লিখা থেকে বিরত থাকেন। তবে তার দীর্ঘ বিরতীর মঝেও কিছু গান বেলাল খানের সুরে বেলাল খান, কনা, জেকে, জাহিন খানসহ আরো কয়েকজন শিল্পীর কন্ঠে গান প্রকাশিত হয় যা তার অভিমান পূর্বের লেখা গান ছিল।
নবীন সুরকার মুরাদ নূরের উৎসাহে গত বছরের শুরুর দিকে তার অভিমানের পর্বের অবসান ঘটিয়ে আবার সক্রিয় হয়ে উঠেন সঙ্গীত জগতে। এসময় তার লেখা বেশ কিছু ভাল গান উপহার দিয়েছেন। ‘সারপ্রাইজ অব মুরাদ নূর’ এ্যালবামে গীতিকার ও সুরকার প্লবন কোরেশী (কন্ঠশিল্পী হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন), ক্লোজআপের রাজীব, মুহিন ও খালেদ মুন্না’র জন্য চারটি গান লিখে প্রত্যাবর্তন করেন। তারপর একে একে লিখেছেন আসিফ আকবর, কুমার বিশ্বজিৎ, তপন চৌধুরী, বেবী নাজনীন, সামিনা চৌধুরী, বেলাল খান, কাজী শুভ, মোহনা সহ আরো বেশ কয়েকজন শিল্পীর জন্য যা খুব শীঘ্রই প্রকাশিত হবে। – রবিউল আউয়াল দুঃখ…
অলংকরন – গোলাম সাকলাইন…

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: