সঙ্গীতে বহুমাত্রিক বিচরনে তরুন মুন্সি…

বাংলা সঙ্গীতের এক সঙ্গীতপ্রিয় ব্যাক্তির নাম তরুন মুন্সি। জীবনের গল্প মানেই যেন সুর ও ছন্দের এক কাব্যিক জীবন। তার কথায় ও সুরে তৈরী হয়েছে বাংলা সঙ্গীতের বেশ কিছু জনপ্রিয় গান। এবারের ভালবাসা দিবসে যতগুলো নতুন গান এসেছে তার মধ্যে তরুন মুন্সির কথা ও সুরে ‘অমন করে তাকিও না ভালবাসা হয়ে যাবে’ গানটি অন্যতম। ‘অমন করে তাকিও না ভালবাসা হয়ে যাবে’ গানটি গেয়েছেন বাংলা সঙ্গীতের যুবরাজ খ্যাত কন্ঠশিল্পী আসিফ আকবর ও চির সবুজ গায়িকা ফাহমিদা নবী। গানটি ইতিমধ্যে ইউটিউবে বেশ সাড়া ফেলেছে এবং শ্রোতা-দর্শককে সত্যিই ভালবাসার আসক্তিতে জড়াতে সক্ষম হয়েছে।

সাম্প্রতিক এই গানটিই নয়। এছাড়াও রয়েছে তরুন মুন্সির সৃষ্টি আরো অনেক শ্রোতাপ্রিয় গান – পদ্মপাতার জল – জেমস, সরলতার প্রতিমা – খালিদ, খোদা ভগবান ঈশ্বর – জেমস, সন্ধি – মাকসুদ, লোকে বলে আমি নাকি নষ্ট – আসিফ আকবর, তোমার চোখে – আগুন, স্বার্থপর – তরুন মুন্সি, অন্য জীবন- মাইলস ব্যান্ড, আগমন – আসিফ আকবর, ভালবাসা অবিরাম – আসিফ আকবর, এ কেমন জীবন – আসিফ আকবর ইত্যাদি।

গানপ্রিয় ব্যাক্তি তরুন মুন্সির সঙ্গীত বিচরন শুধু গীতিকার ও সুরকারের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয় তিনি তার নিজের নামের সঙ্গে মিল বিন্যাস রেখে ‘তরুন ব্যান্ড’ নামে একটি ব্যান্ডদল গঠন করেছেন। তার ব্যান্ডদলে লিড ভোকালে আছেন তিনি তরুন মুন্সি, গিটারে জাহিদুল করিম সামস্ ইমন ও সাফায়াত আল সানি, কীবোর্ডে তানভীর ইসলাম, বেজ এ সাইফুল কালভীন। তিনি তার ব্যান্ডদল ‘তরুন ব্যান্ড’ থেকে একের পর এক গান তৈরী করে যাচ্ছেন। সাম্প্রতিক কবি শক্তি চট্রোপাধ্যায় কবিতা অবলম্বনে ‘অবনী বাড়ি আছো’, শিরোনামে একটি গান করেন তরুন ব্যান্ড। এক কথায় সঙ্গীতে বহুমাত্রিক বিচরনে তরুন মুন্সি।

তোমার চোখের তাঁরাতে আমার স্বর্গ আঁকা
তোমার মনের পাড়াতে আমার বিষাদ একা
সুরে সুরে বাঁধি তবু তোমারে প্রিয়
বাঁধি ভালোবাসায়
আমার এই হৃদয় জুড়ে সবটা তুমি আমি
তোমার কোথাও নাই
বারে বারে ফিরে আসি তোর আঙ্গিনায়
অজানা কোন সে মায়ায়
মনে মনে গড়ি আমি যে প্রতিমা
সে তো তোরই ছায়ায় ॥
এমনই কথামালায় নতুন একটি গানের মিউজিক ভিডিও করেছেন এবং গানটি ইউটিউবে বেশ সাড়া পেয়েছে। সাম্প্রতিক সঙ্গীতাঙ্গনের সাথে তার সঙ্গীত জীবনের নানা দিক আলোচনায় উঠে আসে।

সঙ্গীতাঙ্গনঃ কেমন আছেন?
তরুন মুন্সিঃ উপর ওয়ালার মেহেরবানীতে ভাল আছি।

সঙ্গীতাঙ্গনঃ সঙ্গীত জগতে আপনার পথচলার গল্পটা যদি একটু বলতেন।
তরুন মুন্সিঃ আসলে একান্তই নিজের ভাল লাগা থেকে গান করতে আসা। কিন্তু পারিবারিক ভাবে মা-বাবা দুজনেই সঙ্গীত ভালবাসেন এবং চর্চা করতেন। আর গানের কথা লেখা বা সুর করাটাকে আমি একটু বিস্ময়কর অনুভূতিইবলতে পারি। আমি মনে করি ও বিশ্বাস করি এটা মহান আল্লাহ্ তালার একটা দান আমার জীবনে।

সঙ্গীতাঙ্গনঃ মাঝখানে দীর্ঘ বিরতির পর সঙ্গীতে ফিরে এসে আবারও আলোচনায়। আপনার অনুভূতি কেমন এবং বিরতির সময় নিয়ে কোন আক্ষেপ জাগে কি?
তরুন মুন্সিঃ আসলে আমার গানের শুরুটাই ছিলো নিজের জন্য ও একান্ত বন্ধু মহলে। কিন্তু সেটা ধীরে ধীরে আমাকে অন্য কোন ভালো লাগায় জড়িয়ে ফেলে এবং যার প্রকাশ হয়েছিল ‘দ্যা ট্রাপ’ এর ঠিকানা এ্যালবামের
‘চলে যদি যাবি দূরে স্বার্থপর’ গানটির মাধ্যমে। ব্যান্ড সঙ্গীতই ভালো লাগতো বেশী। যার ফলে ১৯৯৯ সালে প্রথম বেন্সন অ্যান্ড হেজেস এর আয়োজনে ২য় স্থান অর্জন করি। তারপর একসময় গান লেখা ও সুর করা, বিভিন্ন শিল্পীর সাথে কাজ করা।
ব্যাক্তিগত কারনেই আমি ২০০০ সাল থেকে আর নিয়মিত গানের সাথে থাকতে পারি নাই। দীর্ঘ প্রায় ১৫ বছর পর আবার ২০১৪ সালে নিজের পাশাপাশি অন্যদের সাথেও গান করার একটা অন্ধ বিশ্বাস নিয়ে এবারের যাত্রা
শুরু করি। আমার গান কম বা বেশী করা কিংবা মাঝখানে দীর্ঘ বিরতি নিয়ে কোন আক্ষেপ নাই। কারন, আমি যখন যা করতে চেয়েছি আল্লাহ্ তালা আমাকে সে কাজে সফল করেছেন যার উদাহরন হিসেবে আমি আমার
১২ বছরের এয়ার লাইন জীবন, যেখানে আমি একটি সম্মান জনক অবস্থানেই ছিলাম। তবে আমার কোন গানের কথা বা সুর যদি অন্য কারো নামে ব্যবহার করা হয় তখন মনে কষ্ট হয়।

সঙ্গীতাঙ্গনঃ সঙ্গীত নিয়ে আপনার পরিকল্পনা কি?
তরুন মুন্সিঃ একটি দেশের সকল কর্মকান্ডের গঠনমূলক পরিবর্তন আনয়নে সঙ্গীতের একটা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা থাকতে পারে। আমি গঠনমূলক কিছু করার চেষ্টা করবো।

সঙ্গীতাঙ্গনঃ সঙ্গীতাঙ্গনকে সময় দেয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।
তরুন মুন্সিঃ সঙ্গীতাঙ্গনকে আমার ও তরুন ব্যান্ডের পক্ষ থেকে আন্তরিক ধন্যবাদ। – রবিউল আউয়াল দুঃখ…
অলংকরন – গোলাম সাকলাইন…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: