ফেসবুক নিয়ে বিড়ম্বনায় এন্ডু কিশোর…

এন্ডু কিশোর শুধু একটি নাম নয়। বাংলা সঙ্গীতের জনপ্রিয় শ্রোতানন্দিত এক কন্ঠ শিল্পীর নাম এন্ডু কিশোর। যার কন্ঠে বাংলা সঙ্গীত জগতে প্রানের সঞ্চার সৃষ্টি করে। সমৃদ্ধ করেছেন বাংলা সঙ্গীত ভান্ডার, সুরের ছোঁয়ায় নেশা ধরিয়েছেন কোটি শ্রোতা হৃদয়। জাতীয় চলচ্চিত্র পুরুষ্কার প্রাপ্ত এই গুনী শিল্পীর কালজয়ী গানগুলো শ্রোতা হৃদয়ে সুর তোলে বেড়ায়। বাংলা সঙ্গীতের তিনি এমন এক শিল্পী যার গাওয়া গান সকল শ্রেণীর শ্রোতাদের কাছেই গ্রহনযোগ্যতায় কমতি নেই। বেঁচে থাকুন জনম জনম, সমৃদ্ধ করুন সঙ্গীতাঙ্গন। বাংলা সঙ্গীতের গানপ্রিয় শ্রোতাদের হৃদয়ের খোরাক হয়ে যুগের পর যুগ হোক পথ চলা।

বাংলা সঙ্গীতের অসংখ্য জনপ্রিয় গানের কন্ঠ শিল্পী এন্ডু কিশোর কোন ফেইসবুক আইডি ব্যবহার করেন না। কিন্তু ফেসবুকে তার ছবি ও নাম ব্যবহার করে অসংখ্য আইডি রয়েছে। সাম্প্রতিক জানা যায় এই জনপ্রিয় কন্ঠ
শিল্পীর নাম ও ছবি ব্যবহারকৃত আইডি থেকে তাঁর ভক্ত, শ্রোতা-দর্শকদের কাছ থেকে অর্থিক সাহায্য চেয়ে বিভিন্নভাবে বিভ্রান্ত করা হচ্ছে। এমন তথ্যের ভিত্তিতে সঙ্গীতাঙ্গন থেকে এই জনপ্রিয় কন্ঠ শিল্পী এন্ডু কিশোর এর সাথে যোগাযোগ করা হলে, তিনি বলেন – আমার কোন ফেইসবুক আইডি নাই। আমি কোন ফেইসবুক ব্যবহার করি না। এমন কি ফেইসবুক ব্যবহার সম্পর্কে আমার ভাল কোন ধারনাও নেই। তবে আমার ‘এন্ডু কিশোর ডট অফিসিয়াল’ একটি ফেসবুক পেইজ আছে যা আমার স্ত্রী অপারেটর করে থাকে। আমি জানি আমার ভক্ত ও শ্রোতারা আমাকে অনেক ভালবাসে। তাদের এই ভালবাসার দুর্বলতাকে পুঁজি করে কিছু অসৎ হীনমনা ও অসাধু ব্যাক্তি আমার নাম ও ছবি ব্যবহার করে ফেসবুক আইডি থেকে বিভিন্ন ধরনের বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়ে শ্রোতা দর্শকদেরকে বিভ্রান্তি করছে।

আমি আমার শ্রোতা দর্শকদেরকে এসব বিভ্রান্তিকর তথ্য বিশ্বাস না করার অনুরুধ করছি। আপনারা কেউ এরূপ তথ্যে বিভ্রান্ত হয়ে কোন বিপদের সম্মুখীন হবেন না। আমি আপনাদেরকে সতর্ক করে দিচ্ছি, আপনারা কোন রকম বিভ্রান্ত হবেন না। ফেসবুকে আমার কোন আইডি নাই এবং আমি ফেইসবুক ব্যবহার করি না।আমার নাম ও ছবি ব্যবহারকৃত সকল আইডি বন্ধ করে দেয়ার জন্য আমি ফেসবুক কর্তৃপক্ষকে সবিনয় অনুরুধ করছি। আমার শ্রোতা-দর্শকদেরকে বিভ্রান্তিকর পরিস্থিতির হাত থেকে পরিত্রান দিতে এসব আইডি বন্ধ করার কঠিন দাবি জানাচ্ছি। – রবিউল আউয়াল দুঃখ…
অলংকরন – গোলাম সাকলাইন…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *