স্বাধীনতা সম্মাননা স্মারক – ২০১৭ পুরস্কার পেলেন সঙ্গীতশিল্পী তাজরিন গহর…

“সেই যে গেলো ভাইটি আমার সাঁঝের কুয়াশায়
আজো আমার মায়ের ঘরে কান্না শোনা যায়।”

– স্বাধীনতার ৪৫ বছর পর, গত বছর বাবার লেখা গানটি নিয়ে, অমর একুশের বাণী মধুর কণ্ঠ নিয়ে সঙ্গীতাঙ্গনে নতুন করে নিজেকে প্রকাশ করেন তাজরিন গহর।

জাতীয় সঙ্গীত ‘আমার সোনার বাংলা’ এর পরে আমরা যে দেশাত্মবোধক গানটিকে সম্মান করি, যে গানের কথা আমাদের প্রানে, হৃদয়ে মিশে আছে, সেই বিখ্যাত গান ‘জন্ম আমার ধন্য হলো মাগো’ গানটির গীতিকবি শ্রদ্ধেয় নয়ীম গহর এর সু’ কন্যা তাজরিন গহর। গত বছর উনার বাবা (নয়ীম গহর) এর ৪৫ বছর আগের লেখা ‘একুশ আসে’ গানটি নিয়ে তিনি আমাদের মাঝে আসেন। ছোটবেলা থেকেই সুরের ভুবনে বেড়ে উঠা সম্ভাবনাময়ী সঙ্গীতশিল্পী তাজরিন গহর ইতিমধ্যে তার গানের মাধ্যমে সঙ্গীতজ্ঞ এবং শ্রোতাদের মন জয় করে নিয়েছেন।

তাইতো বাংলা সঙ্গীতে অসামান্য অবদানের জন্য ‘লোক গানের আসর’ স্বাধীনতা স্মারক ২০১৭ পেলেন তিনি। মঙ্গলবার (১৮ এপ্রিল ২০১৭) কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরির শওকত ওসমান মিলনায়তনে এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মাধ্যামে এই পুরস্কার প্রদান করেন বাংলার সঙ্গীত সমাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘লোক গানের আসর’।

সংগঠ‌নের উপ‌দেষ্টা জয়নাল আবেদীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অর্থ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ও বিশিষ্ট অভিনেতা পীরজাদা হারুন উর রশীদ।

এই সম্মাননা স্মারক অনুষ্ঠান‌টিতে যারা সম্মানিত হয়েছেন তারা হচ্ছেন ‘তাজরিন গহর, চন্দনা মজুমদার, জয়নাল আবেদীন, ছিমি ছিমরান, তানিয়া রিতু, তানিন সুবহা, কানিজ ফাতেমা রিপা, শাহনাজ ইসলাম, নওরীন শরিফ, রিমন মাহফুজ, রেজাউর রহমান রিজভী, তূর্য না‌সির, সালাউদ্দিন সুজন, এম এ মোমিন, প্রিয়াঙ্কা জামান, আরজে সাইমুর রহমান, তিথি, মি‌ষ্টি মা‌রিয়া, মামুন বিশ্বাস, ফয়সাল, মাইকেল বাবু, এস এ শাওন, তাপস কর্মকার, মাহিন রহমান, কা‌নিজ ফা‌তেমা রিপা, নুসরাত রাখা।

অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন বিশিষ্ট সঙ্গীতশিল্পী চন্দনা মজুমদার, ক্লোজআপ ওয়ান তারকা নওরীন শরিফ, এম এ মোমিন, এস এ শাওন, মৌ, মোনিসা, হালিম খান প্রমুখ।

এ ছাড়াও অনুষ্ঠানে বিশেষ বিশেষ ক্ষেত্রে অবদানের জন্য বাংলার সঙ্গীত এর পক্ষ থেকে স্বাধীনতা স্মারক প্রদান করেন সংগঠনের সভাপতি লিপু খন্দকার।

বাবার রেখে যাওয়া সেই গান এবং মায়ের ভালোবাসা নিয়ে তাজরিন গহর অনেক দুর এগিয়ে যাবে এই শুভকামনা আমাদের।

অলংকরন – গোলাম সাকলাইন…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: