সকল শ্রমজীবী মানুষের প্রতি স্বশ্রদ্ধ সালাম…

প্রত্যেক মানুষই বেঁচে থাকেন তার কর্মের মাধ্যমে। মানুষ তার মেধা, প্রতিভা, শিক্ষা এবং যোগ্যতার প্রমাণ করে তার শ্রম এর মাধ্যমে। শিল্প প্রতিষ্ঠান থেকে শুরু করে যারা কর্মের মাধ্যমে অর্থ আয় করেন সবাই শ্রমিক। দেশ-বিদেশের সর্বস্তরের শ্রমিকদের মতো বাংলাদেশের মিউজিক ইন্ডাস্ট্রিতে যন্ত্রশিল্পী থেকে শুরু করে গীতিকবি, সুরকার, কণ্ঠশিল্পী, মিউজিসিয়ান, সঙ্গীতাঙ্গন এর সাথে জড়িত সবাই শ্রমিক। এবং সকল শ্রমিককেই তার নিজ নিজ স্থান থেকে নিজ অধিকার আদায়ের জন্য যুদ্ধ করে বাঁচতে হয়। ঠিক তেমনই ১৮৮৬ সালে শ্রমিকরা নিজের অধিকার আদায়ের জন্য লড়াই করেছিলেন।
এবং আমরা আজ পেয়েছি শ্রমিকদের মূল্যায়ন।

১৮৮৬ সালের ১লা মে আমেরিকার শিকাগো শহরের হে মার্কেটের চত্বরে সংঘটিত শ্রমজীবি মানুষের উপর অতর্কীত হামলা চালিয়ে বিশ্বশ্রমিকের অধিকার আদায় ও মর্যাদা রক্ষায় আন্দোলনরত শ্রমিকদের নিষ্ঠুরভাবে হত্যা করার দিনটাকে স্মরণ এবং তাদের সেই চেতনায় নতুন ভাবে উদ্ধুদ্ধ হয়ে শ্রমিক স্বার্থ সংরক্ষনের লক্ষ্যে জাগ্রত থাকার শপথ গ্রহণের একটা বিশেষ দিন এই মে দিবস ।

নানাবিধ উপাধিতে আজকের দিনটিতে এই দিবসটি বিশ্বব্যাপী পালন করা হয়। মে দিবসকে বলা হয় – আন্তর্জাতিক শ্রমিক সংহতি দিবস। তাছাড়াও এ দিবসটি – আন্তর্জাতিক শ্রমিক হত্যা দিবস, লেবার ডে, ইন্টারন্যাশনাল ওয়ার্কার ডে ইত্যাদি। মেহনতি জনতার আন্তর্জাতিক সংহতি ও সংগ্রামের স্মৃতিস্মারক এই দিবস। বিশ্বের শ্রমজীবি মানুষের অধিকার আদায়ের দিন এ দিবস।

শ্রমিকদের অধিকার আদায় এবং মর্যাদা সমুন্নত রাখতে এ দিবসের আয়োজন। মালিক-শ্রমিক সম্পর্ক, দায়িত্ব ও কর্তব্যকে স্মরণ করার জন্য এ দিবস। মালিক পক্ষের শোষণ, বঞ্চনা থেকে শ্রমিকদের মুক্তির স্বপ্ন নিয়ে ১৮৮৬ সালের ১লা মে’র সেই সংগ্রামের স্মৃতি ও চেতনায় নতুন ভাবে জাগ্রত হবার লক্ষ্যে এ দিবসের আয়োজন ।

আজ এই দিনে সকল শ্রমিকদের প্রতি স্বশ্রদ্ধ সালাম নিবেদন করছি।
অলংকরন – গোলাম সাকলাইন…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: