ইন্দিরা গান্ধী সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের সুরসন্ধ্যার আয়োজন…

সুফিয়া কামাল অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল ইন্দিরা গান্ধী সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের একটি মনোরম সংগীত সন্ধ্যা। অনুষ্ঠানের মূল আকর্ষণ ছিল, কলকাতার সংগীত শিল্পী মিস মনজুশা চক্রবর্তী এবং সীতার বাদক শ্রী দ্রুবাজয়তী চক্রবর্তী।

সংগীতানুষ্ঠানে মিস মনজুশা চক্রবর্তী ১০টি গান পরিবেশন করেন; এর মধ্যে ছিল আমি সুরে সুরে, এই সুন্দর স্বর্ণালী সন্ধ্যায়, আমার স্বপন, ও স্বজন হায়, কত গান হারালাম, তোমার সাথে দেখা, ওই সুর ভরা দূর, সেদিন মন জানেনা, এতো বড়ো আকাশটাকে এবং সর্বশেষে ও মাঝিরে গানটি।
শ্রী দ্রুবাজয়তী চক্রবর্তী সেতারে বিভিন্ন ধরনের রাগ ও ধুন যেমন পুরিয়াধনেশ্রী আওয়াচর, দ্রুত তিন তাল এবং ঝালা পরিবেশন করেন।
তবলায় ছিলেন মিলন ভট্টাচার্য, অক্টোপ্যাড এ ছিলেন পার্থ প্রতিম গুহ এবং কীবোর্ড এ ছিলেন সুনীল সরকার।

শিল্পী মনজুশা চক্রবর্তী, তার সংগীতের হাতেখড়ি নেন প্রখ্যাত সংগীত শিল্পী ছবি বন্দোপাধ্যায়ের কাছ থেকে। পরে তিনি শ্রী স্বপন মুখোপাধ্যায় এর কাছ থেকে বাংলা গানের পুরাতানী, তপ্পা ও ঠুমরী এর ওপর প্রশিক্ষণ নেন।
তাছাড়া তিনি বিমান মুখোপাধ্যায়, শ্রী সংকর ঘোষাল এবং শ্রীমতী আনসুয়া মুখোপাধ্যায় প্রমুখের কাছ থেকে নজরুল সংগীতের ওপর প্রশিক্ষণ নেন। পরে তিনি সুপরিচিত সুরকার শ্রী জ্যোতিলেশ্বর মুখার্জী এর কাছ থেকে আধুনিক গানের উপর দিক্ষা নেন।

শিল্পী মনজুশা চক্রবর্তী সরকারি পর্যায়ে এবং অন্যান্য মর্যাদাপূর্ণ সঙ্গীত কর্মসূচী সমূহে ভারত ও বিদেশে নজরুল একাডেমী সংগঠিত স্থানীয় লোকসংস্কৃতি মেলা, বাংলা গানের মেলা, কর্মশালা এবং পাঠ্যক্রমের কাজ করেছেন। তিনি কলকাতার অল ইন্ডিয়া রেডিওতে একজন নিয়মিত শিল্পী এবং বিভিন্ন টিভি চ্যানেলেও তিনি নিয়মিত শিল্পী।

শ্রী দ্রুবাজয়তী চক্রবর্তী, মহান উস্তাদ আলাউদ্দিন খানের শিষ্য প্রফেসর সুনিল দেব বর্মণ এর কাছ থেকে সিতারের প্রশিক্ষণ নিয়েছেন।
তিনি প্রফেসর সন্তোষ কুমার বন্দ্যোপাধ্যায় এর কাছ প্রশিক্ষণ পেয়েছেন। উস্তাদ আলী আকবর খান, পণ্ডিত নিখিল ব্যানার্জী, পণ্ডিত দ্রুবতারা যোশী প্রমুখের অধীনেও তিনি বাদ্যযন্ত্রের প্রশিক্ষণ লাভ করেন। তিনি প্রথম শ্রেণীর এমএসসি এবং পিএইচডি ধারনকৃত । কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে নৃবিজ্ঞান বিজ্ঞান নৃতাত্ত্বিক ও সংগীত সম্পর্কিত বক্তৃতা সেমিনার, যেমন ইথোমোমিজোলজি, ভারত ও বিদেশে বিশেষ করে জার্মান, ফ্রান্স, নেদারল্যান্ডস, নরওয়ে ইত্যাদি বিষয়ে তিনি অত্যন্ত প্রশংসা পেয়েছেন। তিনি ‘লিপজিগ চেম্বার মিউজিক হল’ এও মিউজিক করার বিরল সুযোগের সাথে সম্মানিত হন। তিনি ‘সুরমনি’র মতো অনেক পুরস্কার এবং সম্মান অর্জন করেছেন। – ফাহমিদা আলম প্রিয়াংকা…
অলংকরন – গোলাম সাকলাইন…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *