জুয়েল এর ‘এমন হলো কই’…

অনেক সময়ের গন্ডী পেরিয়ে আবারো বাপ্পা মজুমদারের মায়ার বাধনে সৃষ্টি হলো হাসান আবিদুর রেজা জুয়েলের মন মাতানো একক এ্যালবাম এমন হোল কই ?

গতকাল ১৮ মে ঢাকার বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র মিলনায়তনে প্রকাশীত হলো হাসান আবিদুর রেজা জুয়েলের দশম একক এ্যালবাম ‘এমন হোল কই? এ আয়োজনে গনমাধ্যমের প্রতিনিধি ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন এসময়ের জনপ্রীয় সঙ্গীত পরিচালক ও ব্যান্ড সদস্যগন। আরো উপস্থিত ছিলেন ফিডব্যাক এর ফুয়াদ নাসের বাবু, লাবু রহমান,পার্থ মজুমদার, আলিফ আলাউদ্দিন, রাশীদ খাঁন,রিয়াদ হাসান সহ গীতিকার জুলফিকার রাসেল ও শাহান কবন্ধ।

সঙ্গীতাঙ্গনের এক প্রশ্নের জবাবে হাসান আবিদুর রেজা জুয়েল বলেন, একক এ্যালবাম করতে দেরী হলো, কিন্তু এর মধ্যে মিক্সড এ্যালবাম করেছি বেশ কয়টি। সঙ্গীতের এই প্রেমিক দুঃখের সাথে ব্যক্ত করেন যে, একক এ্যালবাম না করার পেছনে একটা কারণ আছে আর তা হলো বর্তমান সঙ্গীতের কালছার পরিবর্তন হয়ে যাওয়া। তিনি আরো বলেন, প্রযোজকরাও এখন একক এ্যালবামে নিরউৎসাহী। তিনি বলেন প্রযোজরা এখন ডিজিটাল বা ফিজিক্যাল এ্যালবাম ২/৪ করে তাও আবার জনপ্রিয় শিল্পীদের নিয়ে। এতে প্রযোজকের কোন দোষ নেই বলে উল্লেখ্য করেছেন হাসান আবিদুর রেজা জুয়েল। তিনি মত প্রকাশ করে বলেন আমার মত অনেক শিল্পী মাঝেমধ্যে কিছু গান করি যা শুধু মনের তাগিদে আর স্রোতাদের মাঝে টিকে থাকতে। তিনি জানান যে এবারের এ্যালবাম এমন হলো কই? প্রকাশের মূল কারণ শুধু মাত্র শিল্পী বাপ্পা মজুমদারের অকৃত্তিম ও আন্তরিক ভালোবাসায়।

এসময় তিনি তার বক্তব্যে প্রকাশ করেন তার প্রতি বাপ্পার ভালোবাসা ভালো লাগার অনুভূতি। এদিকে বাপ্পার অতীত তুলে ধরে সঙ্গীতাঙ্গনকে জানান যে, আমার গায়ক হওয়ার পথ চলা যে মানুষটার হাত ধরে তিনি আর কেউ নয় তিনি হলেন আমার পরম কাছের মানুষ, আমার শ্রদ্ধেয় বড় ভাই হাসান আবিদুর রেজা জুয়েল ভাই। তিনি নিজে আমাকে বেতার জগৎ এর স্বত্বাধিকারী কচি ভাই এর কাছে নিয়ে যায়, আর জোড় গলায় বলেন, এটা আমার ছোট ভাই বাপ্পা। ভালো গান গায়। ওর এ্যালবামের কাজ আপনাকেই করতে হবে। আর কচি ভাই ও রাজি হয়ে গেলেন। আর আমার প্রথম এ্যালবাম হয় ‘তখন ভোরবেলা’ আর এটা সম্ভব হয় শুধু জুয়েল ভাইয়ের জন্য। সেই মানুষটির একটা পুরো এ্যালবাম করার তাগিদ ছিল আমার বহুদিনের স্বপ্ন। সেই স্বপ্নের বাস্তবায়ন হলো। এসময় তিনি আরো জানান যে আমার সবচেয়ে আনন্দের বিষয় হলো আমি আমার নিজের প্রতিষ্ঠান “লেবেল বি ইজম ওর্য়াকস্টেশন” থেকে সর্ব প্রথম জুয়েল ভাইয়ের এ্যালবাম দিয়ে শুরু করি।

এদিকে জুয়েল তার এ্যালবাম সম্পর্কে বলতে গিয়ে বলেছেন ৪টি মৌলিক গানের পাশাপাশি একটি রবীন্দ্র সঙ্গীত থাকছে এবারের এ্যালবামে। এ কথা বলতে গিয়ে শিল্পী জুয়েল বলেন রবীন্দ্র সঙ্গীতের ভক্ত আমি খুব ছোট থেকে। এবারের এ্যালবামে রবীন্দ্র সঙ্গীতের শিরোনাম ‘দুজনে দেখা হলো’। এছাড়া ১৮৮৫ সালে লেখা প্রেম ও প্রকৃতি বিষয়ে একটি বিখ্যাত গান আশা করছি জনমনে দুলা দেবে। জনপ্রিয় এই সঙ্গীত শিল্পী তার অতীতের কাজের কিছু বণর্না দিতে গিয়ে বলেন, ২০১০ সালে আইয়ুব বাচ্চুর সুর সঙ্গীতে সর্বশেষ ৯ম একক এ্যালবাম বের হয়েছিল ‘দরজা খোলা বাড়ি’ সব মিলিয়ে বাংলার এই জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পীর সুদীর্ঘ সঙ্গীত জীবনের বড় সময় পিছনে ফেলে দিয়ে শেষ করলেন ১০ম এ্যালবাম যা সত্যি দর্শকের মন কেড়ে নেবে বলে আশাবাদী সঙ্গীতাঙ্গনের প্রতিনিধি সহ দেশের সমগ্র সঙ্গীত পিপাসু ভক্তদের। – মোঃ মোশারফ হোসেন…
অলংকরন – গোলাম সাকলাইন…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: