জননী বঙ্গপ্রভা সম্মাননায় ভূষিত হলেন জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী কনকচাঁপা…

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রাপ্ত গুনী সঙ্গীত শিল্পী কনকচাঁপা কে ‘অনলাইন স্কুল’, ‘আমাদের খেলাঘর’, ‘স্কুল ও প্রকৃতি প্রেমী” এবং আরো তিনটি সংঘঠন মিলে “জননী বঙ্গপ্রভা” বিষেশ সম্মাননায় ভূষিত হয়েছেন। গত শুক্রবার বিকালে রাজধানীর কাকরাইলের একটি মিলনায়তনে “জাতীয় ফুল শাপলা বাচাঁই, শাপলায় সাজাই” কর্মসূচীর ২০১৭ এর আলোচনা অনুষ্ঠানে জনপ্রিয় এ শিল্পীর হাতে সম্মাননা তুলে দেওয়া হয়। এ কর্মসূচির সভাপতি ছিলেন বৃক্ষপ্রেমী হাবীবুল ইসলাম। এ সময় হাবীবুল ইসলাম শান্ত সহ অন্যদের হাত থেকে এ সম্মাননা গ্রহন করেন শিল্পী কনকচাঁপা।

অনুষ্ঠানে জানা যায়, আজ থেকে পাচঁ বছর আগে কনকচাঁপারর উদ্যোগে অনলাইন স্কুল এবং আমাদের খেলাঘর প্রতিষ্ঠিত হয়। এ প্রতিষ্ঠানে বর্তমানে সদস্য হিসেবে আছেন ৩২ জন। কনকচাঁপার উৎসাহে তাঁরা সমাজের মানুষের জন্য নানা ধরনের কাজ করে থাকেন। শুধু তাই নয় প্রকৃতির ভারসাম্য রক্ষায় সংগঠনটি বিষেশ অবদান রাখছেন। তেমনি একটা উদ্যোগ “জাতীয় ফুল শাপলা বাচাঁই, শাপলায় সাজাই”। এই আলোচনায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট সুরকার ও সঙ্গীত পরিচালক মাইনুল ইসলাম খান। আলোচনা শেষে প্রায় ৪০০ জন প্রকৃতি প্রেমীদের সঙ্গে নিয়ে রমনা বটমূলে যান। সেখানে একটি শাপলার চারাকে পানিতে অবমুক্ত করান। আর এর মধ্যে দিয়ে শাপলা বাচাইয়ের কার্যক্রম শুরু করেন। সকল প্রকৃতি প্রেমীদের হাতে শাপলার চারা তুলে দেওয়া হয়।

এপ্রসঙ্গে গুনী শিল্পী কনকচাঁপা বলেন যে, আমি সত্যিই ভাগ্যবান যে আমার চারপাশে প্রকৃতিপ্রেমী এমন কিছু মানুষ পেয়েছি, যারা এইদেশের মানুষের জন্য, দেশের প্রকৃতির জন্য সব সময়ই ভেবে থাকেন। তাদের সাথে পথ চলাই আমার আনন্দ। আর সে আনন্দ অন্য কোন কিছুতেই পাওয়ার সম্ভাবনা নাই। তবে আমি এই সম্মাননা পেয়ে একটু বিবৃতই ছিলাম। কিন্তু সবার মধ্যে আমার জন্য মায়া দেখে মুগ্ধ হয়েছি। আমাদের খেলাঘর স্কুলে সবাই আমাকে মা বলে ডাকে। তাদের মা হতে পেরে আমিও আনন্দিত। তাদের সুখে দুঃখে পাশে থাকতে পারি এটা আমার খুব ভালো লাগে। – মোঃ মোশারফ হোসেন মুন্না…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: