আজ সঙ্গীতাঙ্গন এর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী – সাথে থাকার জন্য সকল সঙ্গীতানুরাগীদের ধন্যবাদ…

“স্বপ্নের পথগুলো গড়েছি তীলেতীলে
যতনে সবকিছু রেখোগো সবেমিলে।”

– আজ সঙ্গীতঙ্গন এর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী।
অনেক বাধা-পথ পেরিয়ে আমরা চেয়েছি সঙ্গীতের সঠিক ইতিহাস, গানের গল্প, সঙ্গীতজ্ঞদের মনের কথা সবাইকে জানাতে, চেয়েছি সবার পাশে থাকতে।
সবার প্রতি কৃতজ্ঞ সঙ্গীতাঙ্গন এর সাথে থাকার জন্য। সবাইকে সাথে নিয়ে আমরা এগিয়ে যেতে চাই।
আমরা সঙ্গীতকে ভালোবেসেই সঙ্গীতকে সুন্দর ভাবে উপস্থাপন, প্রচার, প্রসার এবং সঙ্গীতের নানান বিষয় নিয়ে সঙ্গীতের সঠিক তথ্য শ্রোতা এবং পাঠকদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করি। সকল বিনোদন এর মধ্যে একমাত্র সঙ্গীতই মানুষের সবচেয়ে নিকটতম বন্ধুর মতো। মানুষ সুখে দুঃখে সবসময় সঙ্গীতকে আপন করে নেয়; অনেকের জীবনে সঙ্গীতই পথচলার সঙ্গী। তাই আমরা ‘সঙ্গীতাঙ্গন’ এর মাধ্যমে শ্রোতা এবং পাঠকদের কাছে সঙ্গীতের সঠিক তথ্য তুলে ধরার নিয়মিত প্রচেষ্টা আমাদের।

সঙ্গীতাঙ্গন বাংলাদেশের প্রথম এবং একমাত্র পূর্ণাঙ্গ সঙ্গীত বিষয়ক পত্রিকা।
১৯৯২ সালের জুলাই মাসে দেশের প্রথম বাংলা ভাষায় সঙ্গীত বিষয়ক পত্রিকা সঙ্গীতাঙ্গন প্রকাশিত হয় মাসিক হিসাবে। সে সময় দৈনিক পত্রিকা এবং কিছু বিনোদন পত্রিকা (তখনকার নতুন আবির্ভাব) ছাড়া কিছু ছিল না। এবং সেই সব পত্রিকাতে সঙ্গীত নিয়ে লেখা এক কলম বা দুই কলম ছাড়া সঙ্গীতের জন্য জায়গা হতো না। যেখানে সঙ্গীত একটি অস্ত্র যে কোন দেশের জন্য সেখানে আমরা সঙ্গীতকে অনেকটা পিছিয়ে রাখতে হয়েছে ও হয়।
আমরা সর্বদাই চেয়েছি অন্যান্য বিভাগের মত সঙ্গীতও প্রতিটি মাধ্যমে বড় জায়গা করে থাকুক।

পরবর্তীতে ২০১২ সালের ৩১শে মে থেকে আমরা অনলাইন পত্রিকা হিসেবে নিয়মিত সঙ্গীতের সব ধরনের সংবাদ প্রকাশ করে আসছি। সকল সঙ্গীতশিল্পী, সুরকার, গীতিকবি, মিউজিসিয়ান, প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান, শ্রোতা,পাঠক, সকল সঙ্গীতানুরাগীদের প্রতি কৃতজ্ঞ এবং ভালবাসা সঙ্গীতাঙ্গন এর সাথে থেকে সঙ্গীতাঙ্গনকে প্রেরণা দেবার জন্য।

সঙ্গীতের প্রতি প্রেম,ভালোবাসা এবং দায়িত্ববোধ থেকে আমরা বাংলাদেশের সঙ্গীতাঙ্গন এর প্রতি শ্রদ্ধা রেখে কাজ করে যেতে চাই। সঙ্গীতের সকল দিক, বিষয় পাঠক-শ্রোতাদের কাছে তুলে ধরতে চাই।
সঙ্গীত আমাদের দৈনন্দিন জীবনের সাথী।
মনের ভাব বা বুকের ভিতর লুকিয়ে থাকা শত না বলা ভাষা সঙ্গীতের বাগানে ফুল হয়ে প্রতিদিন ফোটে।
সঙ্গীত এক ধরনের শ্রবণযোগ্য শিল্প, যা সুসংবদ্ধ শব্দ ও নৈশব্দের সংমিশ্রণে মানব চিত্তে বিনোদন সৃষ্টি করে।
আমাদের প্রাচীন সভ্যতায় অনেক ধরনের গান ছিল যা এখন বিলুপ্তি প্রায়। কতো ধরনের বৈচিত্র্যময় মনমুগ্ধ গান আমাদের কবি গান, পালা গান,ভাব বিচ্ছেদী গান, লেটো গান, আলকপ গান, গম্ভীর গান।
সঙ্গীত কালের স্রোতে বহুরুপে ধারণ করে।
যন্ত্রীয় সঙ্গীত, কণ্ঠ সঙ্গীত।
শাস্ত্রীয় সঙ্গীত, লোক সঙ্গীত, আধুনিক সঙ্গীত। এবং ধ্রুপদী, খেয়াল, টম্পা, গজল, কাওয়ালী। এখন প্রাচ্য সঙ্গীত, প্রাশ্চাত্য সঙ্গীত। এই সঙ্গীতের সূত্র ধরেই আমরা পেয়েছি এই দেশের অনেক গুণী শ্রদ্ধাভাজন, কিংবদন্তী, বিখ্যাত ব্যক্তি যারা প্রজন্ম থেকে প্রজন্মের কাছে শিক্ষক ও সম্মানী ব্যক্তি ; সঙ্গীতজ্ঞ এবং বহুমুখী প্রতিভাবান।

গানে মনের প্রশান্তি, গানে শান্তি পাওয়া যায়।
দেহের ক্ষুধার জন্য যেমন খাদ্য, তেমনি মনের খোরাক গান। মানুষ গানের কথায় নিজেকে খুঁজে পায়। গানে দেশের কথা, মানুষের কথা, মাটির কথা, মায়ের কথা অনেক সুন্দর ভাবে হৃদয় জুড়ানো সুরে তুলে ধরে গীতিকবি-সুরকার এবং শিল্পীরা; তাই মানুষ গান শোনে।
অনেক গানে জীবনের গল্পের মিল পাওয়া যায়, ভালোবাসার প্রতিধ্বনি শোনা যায় তাই মানুষ গান শোনে।
এছাড়াও বিশেষজ্ঞদের মতে মনোবল এবং মানুষিক শক্তি সঞ্চয় করে সঙ্গীত। তার উদাহরণ দেশাত্মবোধক গান।
এছাড়া বিবেক জাগ্রত করে গান, যেমন সাধক লালন সাইজী,হাসন রাজা, বিজয় সরকার উনারা আধ্যাত্মিক ও দেহতত্ত্বর গানে মানুষেরকে অনেক দিকনির্দেশনা দিয়েছেন এবং বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলাম তার হামদ-নাত ও ইসলামী গানের মাধ্যমে মানুষের ধর্মীয় অনুভূতি জাগিয়ে তুলেছেন। …. কবি জসীম উদ্দিন সহ লোকজ গানের অনেক খ্যাতিমান সাধক আছেন যারা সাধারণ মানুষের জীবনকথা তুলে ধরেছেন গানের মাধ্যমে।
সঙ্গীত মানুষের হৃদয়ের সাথে সম্পৃক্ত। তাই মানুষ মাত্রই সঙ্গীত বা গানের জন্য এক ধরণের ভালোবাসা বুকে রাখে।
সেই ভালোবাসা অসীম-অম্লান।
গানে যখন নিজ জীবনের প্রতিচ্ছবি ভেসে আসে তখন সঙ্গীত হয়ে যায় মানুষের আত্মার স্পন্দন। মানুষ গানের মাধ্যমেই নিজেদের দু:খ-বেদনার, আনন্দের কথা প্রকাশ করে থাকে।

আর আমরা প্রকাশ করে যায় সঙ্গীতস্রষ্টাদের অনুভূতি এবং স্বপ্নময় জীবনকথা। সঙ্গীতাঙ্গনের সাথে থেকে সঙ্গীতাঙ্গনকে ভালোবেসে এভাবেই যেন সবার সাথে থাকতে পারি।
আজ এই প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে সবার কাছে আমরা দোয়া চাই।
অবশেষে আবেদন, বাংলা গান শুনুন, বাংলা গানের পাশে থাকুন। – সম্পাদকীয়…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: