গায়ক থেকে সুরকার ও সঙ্গীত পরিচালক…

আমি তো মরে যাবো
চলে যাব
রেখে যাবো সবই
আসস নাকি সঙ্গের সাথী
সঙ্গেনি কেউ যাবি
আমি তো মরে যাবো
আমি তো মরে যাবো…
১৯৮৮-৮৯ এর শুরুর দিকে জলি রজার্স ব্যন্ডের মাধ্যমে মিউজিকে যাত্রা শুরু জনপ্রিয় গানের সুরকার ও সঙ্গীত পরিচালক মেহেদীর। গানের মাধ্যেমে এ মানুষটি রাতারাতি দর্শক নন্দীত হয়েছিলেন। তার গানের কথায় শ্রোতারা আনন্দ পেয়েছেন। গায়ক হিসেবে তার কন্ঠে গাওয়া জনপ্রিয় গানের মধ্যে নতুন প্রেমে মন মজাইয়া, জাত গেল জাত গেল ইত্যাদি। দর্শক নন্দীত গানের মধ্যে সেরা গান হলো চুমকি চলেছে একা পথে। বেশ জনপ্রিয় একটি গান। এর ধারাবাহিকতায় পরে এই শিরোনামে আরো গান উপহার দেন দর্শকদের সে গুলো হলো চুমকি ১, চুমকি ২, চুমকি ৩, চুমকি ৪, চুমকি ৫। সব গুলো গানই মেহেদীর সঙ্গীতায়জনে করা।

গেল রোজার ঈদে মেহেদী মিক্স নামে একটি এ্যালবাম থেকে মিজানের একটি সিঙ্গেল ট্র্যাক করেছেন বলে জানিয়েছেন মেহেদী। তার সাথে কথা বলে জানা গেল যে, মেহেদী মিক্সড এ্যালবামের গানের কথা লিখেছেন শ্যামুয়েল হক, সুর ও সঙ্গীতায়জনে ছিলেন তিনি নিজেই। তিনি আরো জানান যে সম্পূর্ণ এ্যালবামটি কুরবানীর ঈদে ছাড়ার চেষ্টা চলছে। শ্রোতাপ্রিয় এই সঙ্গীত পরিচালক এপযর্ন্ত প্রায় ২৫০টি গানের সঙ্গীতায়জন করেন। তার সঙ্গীতায়োজনে ‘চুমকি চলেছে’ গানটিই বাংলাদেশের প্রথম রিমিক্স গান বা ডিজিটাল গান। মেহেদী বলেন যে আমি গায়ক হিসেবে তিনটি সলো এ্যালবামে কন্ঠ দিয়েছি। তারপর সুর আর সঙ্গীতায়জনে আসা। মেহেদী মিক্সড এ্যালবামটি নিয়ে কাজ চলছে। এ্যালবামে মোট আটটি গান থাকবে। মিজান সহ আরো কয়েকজন শিল্পী আছেন এই এ্যালবামে। তিনি বলেন, আশা করছি গান গুলোর কাজ অতি তাড়াতাড়ি শেষ হবে। আমরা এই সুনামধন্য সঙ্গীত শিল্পী, সুরকার ও সঙ্গীত পরিচালকের আশাতীত মঙ্গল কামনা করি। – মোঃ মোশারফ হোসেন মুন্না…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *