Press "Enter" to skip to content

আত্মহত্যা করলেন ‘লিনকিন পার্ক” এর বেনিংটন…

যার কণ্ঠের উপর ভর করে আজ ‘লিনকিন পার্ক’ বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ ব্যান্ড দল, সেই চেষ্টার বেনিংটন গত ২০এ জুলাই বৃহস্পতিবার গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। আমেরিকার ক্যালিফেনিয়ার, পালোস ভার্দোস ষ্টেটে তার নিজ বাসভবনে আনুমানিক সকাল ৯টার দিকে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। এ খবর সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়লে তার ভক্তরা ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

বেনিংটন ছিলেন একজন গায়ক, মিউজিসিয়ান, এবং গীতিকার। তিনি ২০০০ সালে লিংকিং পার্কের প্রথম এ্যালবাম ‘হাইব্রিড থিওরি’তে ভোকাল হিসাবে কণ্ঠ দেয়ার মাধ্যমে নিজেকে সারা বিশ্বে তুলে ধরেন। এবং সফলতা অর্জন করেন। ২০০৩ সালে তার এ্যালবাম ‘মিডিওয়ারা’ বের হয় এবং তার মৃত্যুর আগে ২০১৭ সালে বের হয় ‘ওয়ান মোর লাইথ’।

২০০৫ সালে ‘লিনকিন পার্ক’ এর পাশাপাশি তিনি গড়ে তুলেন নিজের সাইড ব্যান্ড ‘ডেড বাই সানরাইজ’। ২০০৯ সালে এই ব্যান্ডের প্রথম এ্যালবাম ‘আউট অব অ্যাসেজ’ প্রকাশ পায়।

বিনোদন ম্যাগাজিন ‘হিট প্যারাডার’ এর করা বিশ্বের ১০০ হেভি মেটাল ভোকালিষ্টের তালিকায় তিনি আছেন ৪৬ নং তালিকায়। এছাড়াও তিনি বিভিন্ন চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন।

তার মৃত্যুর কারন পাওয়া যায়নি। তিনি কয়েক বৎসর যাবৎ মাদক নেশায় প্রচুর ভাবে লিপ্ত হন। এবং ক্ষোভে একদিন বলেছিলেন তিনি আত্মহত্যা করবেন। গেলো মে মাসে তার কাছের বন্ধু ‘প্রিন্স কর্নেল’ ও আত্মহত্যা করেন।
২২শে জুলাই তার বন্ধুর ৫৩তম জন্মদিন ছিলো। এবং এই দিনেই তিনি পৃথিবীকে চির বিদায় জানালেন।

মৃত্যুর সময় তার বয়স ছিলো মাত্র ৪১ বছর। তার দুই স্ত্রী ও ছয় সন্তান আছেন। তার আত্মহত্যায় আমরা শোকাহত এবং মর্মাহত। – নোমান ওয়াহিদ…

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: