বিটিভির ঈদ আয়োজনে ‘চিরদিনের সাবিনা’…

ঈদ মানে আনন্দ আর সেই আনন্দের সাথে যদি নতুন মাত্রার কিছু যোগ হয় তাহলে তো আনন্দই আনন্দ। সে রকমই কিছু আনন্দ যোগ করতে ঈদ উপলক্ষে ছোটপর্দায় হাজির হবেন জীবন্ত কিংবদন্তি কণ্ঠশিল্পী সাবিনা ইয়াসমীন। তার নিজের গাওয়া জনপ্রিয় দশটি গান নিয়ে বিটিভি আয়োজন করেছেন সাবিনার একক সংগীতানুষ্ঠান। বিটিভির মহাপরিচালক এস.এম হারুন অর রশীদের পরিকল্পনা ও সার্বিক তত্ত্বাবধানে সাবিনা ইয়াসমিনের গাওয়া দশটি গান নিয়ে নির্মিত হয়েছে ‘চিরদিনের সাবিনা’।

কোরবানির ঈদের পরদিন বিটিভতে সন্ধ্যা ৭টায় ‘চিরদিনের সাবিনা’ প্রচার হবে। অনুষ্ঠানটি প্রযোজনা করেছেন নূর আনোয়ার রনজু। গত ২০ আগস্ট বিকালে সাবিনা ইয়াসমীন অনুষ্ঠানটির রেকর্ডিংয়ে অংশ নিয়েছেন বলে জানা যায়। অনুষ্ঠানের শুরুতেই সাবিনা ইয়াসমীন নজরুল ইসলাম বাবুর লেখা অজিৎ রায়ের সুরে ‘একটি বাংলাদেশ তুমি জাগ্রত জনতার’ গানটি পরিবেশন করবেন। এরপর একে একে তিনি ‘রজনীগন্ধা’ চলচ্চিত্রের ‘আমি রজনীগন্ধা ফুলের মতো’, ‘ও রে ও পরদেশী’, ‘প্রেম যেন মোর গোধুলী বেলা’, ‘একটুস খানি দেখো’, ‘এই মন তোমাকে দিলাম’, ‘আমার ভাঙ্গা ঘরে ভাঙ্গা চালা’, ‘গীতিময় সেইদিন চিরদিন’ এবং ‘ও আমার রসিয়া বন্ধুরে’ পরিবেশন করবেন। ‘চিরদিনের সাবিনা’ সংগীতানুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেছেন বিশিষ্ট কথা সাহিত্যিক ইমদাদুল হক মিলন। গত বছর রোজার ঈদে বিটিভিতে সঙ্গীত পরিবেশন করেছিলেন তিনি। একবছর পর আবারও বিটিভি আয়োজিত অনুষ্ঠানে অংশগ্রহন করলেন। এখন পর্যন্ত সাবিনা ইয়াসমীন ১৬ হাজারের মতো গান রেকর্ড করেছেন বলে তথ্যসূত্রে জানা যায়। ১৯৭১ সালে নঈম গহরের লেখা ও আজাদ রহমানের সুরে সাবিনা ইয়াসমিনের গাওয়া ‘জন্ম আমার ধন্য হলো মাগো’ গানটি মুক্তিযোদ্ধাদের অনেক প্রেরণা দিয়েছিল। তিনি ১৩ বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, ১১ বার বাচসাস পুরস্কার এবং ১৯৮৪ সালে একুশে পদক, ১৯৯৬ সালে স্বাধীনতা পুরস্কারে ভূষিত হন। ২০১২ সালে তাকে ‘বাংলা একাডেমি’ সম্মানসূচক ফেলোশীপ প্রদান করা হয়। বিশ্ব নন্দীত শিল্পী সাবিনা ইয়াসমিনের শুনাম ও সুখ্যাতি ছড়িয়ে আছে চারদিক। গানকে ভালোবেসে সুরের বাধনে বেধেছে নিজেক চিরদিন আর চিরদিন বাচিঁয়ে রাখতে পুরনো গানগুলি আবার তার মুখে শুনতে পারবো ‘চিরদিন সাবিনা’ অনুষ্ঠানে। গুণী এই শিল্পীর সুসাস্থ্য কামনা করি। জীবন হক মধুময় অনাবিল শান্তিময়। – মোঃ মোশারফ হোসেন মুন্না

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *