এ সপ্তাহের প্রিয় তারকা – তপু…

নাম : রাসেদ উদ্দিন আহমেদ।
ডাক নাম : তপু।
ভক্তরা যে নামে ডাকে : তপু।
পিতার নাম : সামসুদ্দিন আহমেদ।
ভাই/বোন : দুই ভাই এক বোন, ভাই সাইফুদ্দিন ও বোন আয়েশা।
পড়াশুনা : এস.এস.সি ও এইচ.এস.সি বরিশাল ক্যাডেট কলেজে এবং বিবিএ ও এমবিএ নর্থসাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে।
পেশা : সঙ্গীত।
প্রেম : সহ ধর্মিনি নাদিবা খলিল।
সঙ্গীতে কবে থেকে হাতেখড়ি : ১৯৯৮ সালে।
সঙ্গীতে আসার পেছনে কার অনুপ্রেরণা দোলা দেয় : মা।
প্রথম ব্যান্ড : যাত্রী ব্যান্ড।
সাম্প্রতিক ব্যান্ড : যাত্রী ব্যান্ড।
গান করি : ভালোলাগার নিজের লেখা গান গুলোই।
বাজাই : গিটার।
জন্ম তারিখ : ২রা জুন।
জন্ম স্হান : ঢাকা।
রাশি : মিন।
প্রথম স্টেজ পারফর্ম : নর্থসাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি ব্যান্ড সঙ্গীতে।
প্রথম এ্যালবাম : স্বপ্নচূরা-১।
এই পর্যন্ত এ্যালবামের সংখ্যা : সলো-৪টা, ব্যান্ড -২টা, মিক্সড -২০ টার ও বেশি।
সর্ব প্রথম মিডিয়ার সামনে : এটিএন বাংলার একটি মিউজিক অনুষ্ঠানে।
নিজ ব্যান্ড বা নিজের প্রিয় গান : একটা গোপন কথা।
কোন পুরষ্কার :শ্রোতাদের ভালোবাসা।
প্রিয় ব্যাক্তি : আমার বাবা।
প্রিয় ব্যাক্তিত্ত্ব : বাবা।
প্রিয় শখ : গান তৈরি করি, গান শোনা, মুভি দেখা।
পছন্দের খাওয়া : শিক কাবাব।
প্রিয় পোশাক : টি শার্টও জিন্স প্যান্ট।
প্রিয় পারফিউম : মবলা।
প্রিয় গাড়ি : আমার প্রিয় গাড়ি এলিয়েন।
প্রিয় খেলা : দেখতে ফুটবল আর খেলতে বাস্কেটবল।
প্রিয় খেলোয়াড় : মেসি।
প্রিয় বই (দেশ/বিদেশ): হুমায়ুন আহমেদের সঙ্খনীল কারাগার।
প্রিয় ম্যাগাজিন : রহস্য ম্যাগাজিন।
প্রিয় চ্যানেল : স্পোর্টস, ডিসকভারি, নেশনাল জিওগ্রাফি।
চ্যানেলের প্রিয় অনুষ্ঠান : রান্না বিষয়ক প্রতিযোগিতা মূলক অনুষ্ঠান।
প্রিয় শিল্পী : (দেশে) – সঞ্জীব চৌধুরী।
প্রিয় শিল্পী : (বিদেশে) – মাইকেল জেকশন
প্রিয় ব্যান্ড : (দেশে) – নিজ ব্যান্ড যাত্রী।
প্রিয় ব্যান্ড : (বিদেশে) – স্কোরপিয়েন্স।
প্রিয় মিউজিশিয়ান (দেশ/বিদেশ): দেশে-সোয়াদ আল মোস্তাবিজ, বিদেশে- এ আর রহমান।
প্রিয় অভিনেতা (দেশ/বিদেশ): মোশারফ করিম।
প্রিয় অভিনেত্রী (দেশ/বিদেশ): সুবর্ণা মোস্তোফা।
প্রিয় রং : নীল।
প্রিয় ফুল : বেলি।
প্রিয় বেড়ানোর জায়গা : কক্সবাজার।
স্বপ্ন স্হান : সুইজারল্যান্ড।
আমার লক্ষ্য : নিজের যা উদ্যোগ হয় সব ধরনের গান গেয়ে যাওয়া।
অপূর্ণ ইচ্ছা : যা কিছু করার ইচ্ছা এখন পর্যন্ত তা করে যাওয়া।
নতুনদের জন্য কোন উপদেশ : সৎ ও নিষ্ঠাবান থাকতে হবে ও সব সময় হাসি খুশি থাকা।
আমার দুঃখ : নাই।
ভয় পাই : সাপ।
এড়িয়ে চলি : ভন্ডামি, যারা মুখে এক আর মনে আরেক।
আনন্দের স্মৃতি : এস. এস. সি ও আমার প্রথম এ্যালবাম বের হওয়ার পর বাবা মার মুখের হাসি।
বেদনার স্মৃতি : দাদুর চললে যাওয়া।
জীবনটা যেমন : আমি খুব সহজ ভাবে দেখি।
বিশেষ কৃতজ্ঞতা : আমার পরিবার, বন্ধু ও আমার মিউজিক ক্যারিয়ারে যারা সাহায্য করেছে।
গর্ব হয় : যখন বাংলাদেশ ক্রিকেট জয় লাভ করে বিশ্বে আলোচিত হয়।
আবার জন্ম নিলে যা হতে চাইবো : তপু হয়েই জন্ম নিতে চাই।
এখন যাদের সম্ভাবনা বলে মনে হয় : যারা ভালোবেসে কাজ করে তাদের সবারই সম্ভাবনা রয়েছে।
ভক্তরা আমার সাথে যে ভাবে যোগাযোগ করবে : ফেসবুকে।
প্রথমদিন স্টুডিওতে গান করার অনুভূতি : খুব ভয় ভয় লাগছিলো। কারন প্রথম একটা মাইকের সামনে গান গাওয়াটা একটু অন্য রকম অভিজ্ঞতা।
প্রিয় গানের দু’টি লাইন যা আপনাকে প্রেরনা বা দোলা দেয় : যা হতে চেয়েছো তা হয়েছে কি ? নাকি সমাজের চাপে হতেই পারোনি। মনে যার রং তুলি পাঞ্জাবী, বাইরে সে স্যুট পরা পথচারী।
সবচেয়ে ভালবাসি : পরিবারকে।
সবচেয়ে ঘৃনা করি : যারা ভেদাভেদ সৃষ্টি করে তাদেরকে।
সবচেয়ে বড় বন্ধু : গিটার।
সবচেয়ে বড় শত্রু : মোবাইল।
আমার কাছে ভালবাসা : নিস্বার্থ ভাবে ভালোবেসে একজন আরেক জনের সুস্থতা কামনা করা।
আমার কাছে সৌন্দর্য : খুবই সাধারনকে বুঝায়।
দেশে আপনি কোন্ স্থানটি পছন্দ করেন কনসার্টের জন্য (শহরে/জেলা) : আর্মি স্টেডিয়াম।
যেসব দেশে কনসার্ট করেছেন এবং ঘুড়েছেন : লন্ডন, আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া, কানাডা ইত্যাদি আরো অনেক দেশে।
সংগ্রহ – আরিফুল ইসলাম রনি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *