Press "Enter" to skip to content

টিভি রিয়েলিটি শো ‘বাংলাবিদ- ২০১৭’ এর ফলাফল…

আমরা বাঙ্গালী। আমাদের প্রাণের ভাষা, মনের ভাষা বাংলা ভাষা। যে ভাষায় আমাদের আনন্দ বেদনা ভাগ করি আপন জনের সাথে। যে ভাষার দাবিতে শহীদ হয়েছে শত প্রাণ। সেই বাংলা ভাষা নিয়ে চ্যানেল আই সাজিয়েছে বিশেষ রিয়েলিটি শো। বাংলা ভাষা বিষয়ক মেধাভিত্তিক টিভি রিয়েলিটি শো ‘বাংলাবিদ-২০১৭’ গ্র্যান্ড ফিনাল শেষ হলো গতকাল। ইস্পাহানি মির্জাপুর বাংলাবিদ মহাৎসব চূরান্ত ফিনালে উপস্থিত ছিলেন বাঙ্গালীর প্রাণের মানুষ বাংলার জনপ্রিয় সুপরিচিত মুখ সাংস্কৃতিক মন্ত্রী জনাব আসাদুজ্জামান নুর। উপস্থিত ছিলেন ইস্পাহানি মির্জাপুর এর ব্যবস্থাপক জনাব ওমার হান্নান। চ্যানেল আই এর ফরিদুর রেজা। ছোট ছোট সোনামনিদের নৃত্য দিয়ে শুরু হয় চোখ ধাঁধানো পারফর্মটি। আকুল আগ্রহ আর মনোমুগ্ধকর পরিবেশে সবাই অধীর ভাবে তাকিয়ে ছিল আর ভাবতে ছিল কে হবে আজকের সেরা বাংলাবিদ। ১৫ টি পর্ব একে একে শেষ করে ৩৫ হাজার প্রতিযোগী নিয়ে শুরু করা বাংলাবিদ এর আয়োজনে শেষ ৬ জনের হাড্ডাহাড্ডি লড়াই। বিভিন্ন আঙ্গিকের প্রশ্ন ছোড়ে দিলে খুব সুন্দর ভাবেই বাংলাবিদের পরিচয় দিয়ে তারা খেলতে থাকে। নিজেদের নিয়ে যেতে থাকে কাঙ্খিত লক্ষে। এসময় মঞ্চে গান পরিবেশন করেন বাংলা গানের দুই কিংবদন্তি শিল্পী সাবিনা ইয়াসমিন ও রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা।

সাবিনা ইয়াসমিন গাইলেন দেশাত্মবোধক একটি জনপ্রিয় গান ‘একটি বাংলাদেশ তুমি জাগ্রত জনতার’ অপরদিকে রবীন্দ্রসঙ্গীতের জনপ্রিয় শিল্পী বন্যার কণ্ঠে গাইতে শোনা গেছে একটি রবীন্দ্রসঙ্গীত ‘আগুনের পরশমনি’। গানের বিশেষ একটি নিয়ম ছিল। আর সেটা হলো গান দুটি থেকে প্রতিযোগীদের নানা প্রশ্ন করা হবে। তার উপর তাদের নম্বর বরাদ্দ থাকবে। চূড়ান্ত এ পর্বে তারা প্রশ্নগুলোর সঠিক উত্তর দেবে। আগের সেই কথিত নিয়মে অনুষ্ঠানটি অনুষ্ঠিত হয় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে। অনুষ্ঠানটির পরিচালক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তাহের শিপন। উপস্থাপনায় খায়রুল বাশার। প্রতিযোগিতার মূল বিচারক হিসাবে ছিলেন অধ্যাপক ড. সৌমিত্র শেখর, কথাসাহিত্যিক আনিসুল হক যদিও উপস্থিত থাকার কথা ছিল কোন কারণে সে দেশের বাইরে আছে তার সাথে লাইভে কথা হয়। উপস্থিত ছিল অভিনেত্রী সুবর্ণা মুস্তাফা ও সায়িক সিরাজ। প্রায় ৩৫ হাজার প্রতিযোগী থেকে সর্বশেষ টিকে থাকা ৬জন প্রতিযোগীকে নিয়ে গ্র্যান্ড ফিনালে অনুষ্ঠিত হলো। পুর্ব ঘোষণায় ছিল চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায় শীর্ষস্থান অধিকারী প্রতিযোগী পাবে ১০ লাখ টাকার মেধাবৃত্তি। দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থান অধিকারী পাবে যথাক্রমে ৩ লাখ টাকা ও ২ লাখ টাকার মেধাবৃত্তি। প্রথম ১০ জন প্রতিযোগী পাবে ৫০ হাজার টাকার সম মূল্যের ১টি ল্যাপটপ ও ব্যক্তিগত লাইব্রেরি গড়ে তোলার জন্য বাংলা বই ও একটি করে বইয়ের আলমারি। যে সেরা ৬ প্রতিযোগী আজকের প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণ করেছিলেন তারা হলেন, সোয়েব আনিয়াদ খান তুর্য সে এসেছে পাবনা থেকে। সিরাজুল আরিফিন সে এসেছে খুলনা থেকে। রাইসা সালসাবিল লক্ষীপুর থেকে। নুসরাত সায়েম ঢাকা থেকে। প্রতীক পনতীম সিলেট থেকে। ও সমর্পণ বিশ্বাস এসেছিল খুলনা থেকে।

তাদের মধ্যে যারা নিজেদের মেধা ও শ্রমকে কাজে লাগিয় প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থান অর্জন করে তারা হলেনঃ
১। নুসরাত সায়েম- মোট নাম্বার- ৪০
২। সিরাজুল আরেফিন- মোট নাম্বার- ৩৯
৩। রাইসা সালসাবিল ও তুর্য তারা দুজনই ২৪ নাম্বার পেয়ে হয়েছেন তৃতীয়।
অনুষ্ঠান শেষে বিজয়ীদের হাতে পুরুষ্কার তুলে দেওয়ার আগে ফরিদুর রেজার আহবানে শ্রোতা দর্শকদের উৎসাহে মন্ত্রী জনাব আসাদুজ্জামান নুর একটি কবিতা আবৃত্তি করে শোনান। তারপরই একে একে তাদের পুরুষ্কার হাতে তুলে দেওয়া হয়। জনাব আসাদুজ্জামান নুর বলেন, চ্যানেল আইকে আমি ধন্যবাদ জানাই সেই সাথে এই আয়োজনের সাথে যুক্ত থাকা কলাকুশলিদের। বিশেষ করে ইস্পাহানি মির্জাপুরকে। এমন একটা অনুষ্ঠান করাতে। আমার খুবই ভালো লাগছে তাদের ভেতরের অজানা প্রতিভা দেখে। তারাই একদিন এদেশের কর্ণধার হবে। সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে অনুষ্ঠান সমাপ্ত করা হয়। বাংলার মানুষ চায় এমন সৃজনশীল কিছু হক। ভাষাকে নিয়ে এই ধরণের শো এটাই প্রথম। আমরা আশা করি প্রতি বছর এভাবে হবে। সঙ্গীতাঙ্গন এর পক্ষ থেকে এই অনুষ্ঠান সামনে এগিয়ে যাবার শুভ কামনা করছি। – মোঃ মোশারফ হোসেন মুন্না

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: