জনপ্রিয় দেশের গান…

সঙ্গীত জগৎ এর এক কিংবদন্তী সঙ্গীত শিল্পীর নাম সাবিনা ইয়াসমিন। গানের জন্যই যার জন্ম। হাজার হাজার গানের সম্রাজ্ঞী তিনি। যেমনি করেছেন আধুনিক গান তেমনি দেশের গানেও তার প্রতিদ্বন্দ্বী কেউ নেই। দেশাত্ববোধক গানের ক্ষেত্রে সাবিনা ইয়াসমিন বলা যায় অপ্রতিদ্বন্দ্বী। এ পর্যন্ত প্রায় ৩৫-৪০টি দেশের গান গেয়েছেন তিনি। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য কিছু গানের সাথে পরিচিত হই আজ।

এইচ এম ভি থেকে রেকর্ডকৃতঃ

১। জন্ম আমার ধন্য হলো
গীতিকারঃ নঈম গহর
সুরকারঃ আজাদ রহমান
খুবই হৃদয়ছোঁয়া একটি গান। করাচির ট্রান্সক্রিপশন সার্ভিসের জন্য ১৯৭০ সালে এই গানটি করাচির একটি স্টুডিওতে রেকর্ড করা হয়েছিল। গানটি লিখেছেন নঈম গহর। সুর করেছেন আজাদ রহমান। গানটি সাবিনা রেকর্ড করেন নজরুলসঙ্গীত শিল্পী ফিরোজা বেগমের সঙ্গে। ওই সময় এইচএমভি থেকে দুটো গানের একটি রেকর্ড বের হয়। যেখানে প্রথম গানটি ছিল সমবেত কণ্ঠে গাওয়া ‘পূবের ওই আকাশে সূর্য উঠেছে আলোকে আলোকময়’। তার সঙ্গে ‘জন্ম আমার ধন্য হলো মা গো’ গানটি সংযোজিত হয়। এই গান পরবর্তী সময়ে কাজী হায়াতের ‘দেশপ্রেমিক’ ছবিতে ব্যবহার করা হয় সাবিনার কণ্ঠে।

২। ও আমার বাংলা মা তোর।
গীতিকারঃ আবুল ওমরাও মো. ফকরুদ্দিন
সুরকারঃ আলাউদ্দিন আলী
আলাউদ্দিন আলীর সুর করা। গানটির কথা লিখেছেন আবুল ওমরাও মো. ফখরুদ্দিন। তিনি একজন মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন। যুদ্ধের নয় মাস বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে ঘুরে দীর্ঘ সময় নিয়ে গানটি লিখেছিলেন বলে জানা যায়। এ গানটি ১৯৭২ সালে করা। প্রথম গানটি রেকর্ড করা হয় ডিআইটি টিভি ভবনে। মূলত মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক একটা চলচ্চিত্র ‘এক ঝাঁক বলাকা’ র জন্য গানটি সাবিনা ইয়াসমিন গেয়েছিল। সঙ্গীত পরিচালক হিসেবে আলাউদ্দিন আলীর এটি প্রথম ছবি ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ছবিটি হয়নি। পরে দ্বিতীয় দফায় গানটি আবার রেকর্ড করা হয় বিটিভির জন্য।

৩। একটি বাংলাদেশ তুমি
গীতিকারঃ নজরুল ইসলাম বাবু
সুরকারঃ অজিত রায়
গানটি অসম্ভব শ্রোতাপ্রিয় একটি গান। এই গানটি ট্রান্সক্রিপশন সার্ভিসের জন্য করা। সম্ভবত ১৯৭৪-৭৫ সালে। গানটি সুর করেছেন অজিত রায়, আর লিখেছেন প্রয়াত নজরুল ইসলাম বাবু। যিনি সাবিনার গাওয়া আরও কিছু দেশের গান লিখেছিলেন। এই গানটি প্রথম রেডিওর জন্য করলেও অনেক বছর পর বিটিভির জন্য নতুন করে রেকর্ড করা হয়।

৪। ও মাঝি নাও ছাইড়া দে
গীতিকারঃ এস এম হেদায়েত
সুরকারঃ আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল।
গানটি লিখেছিলেন প্রয়াত এস এম হেদায়েত। গানটি সাবিনার কাছে বিশেষভাবে স্মরণীয়। কারণ যখন গানটি রেকর্ড করা হয় তখন শ্রাবণ “সাবিনার ছেলে” তার গর্ভে ছিলেন। দু-এক মাসের মধ্যেই তার ডেলিভারি। এ গানটি লিখেছিলেন প্রয়াত এস এম হেদায়েত।

৫। সব ক’টা জানালা খুলে দাও না
গীতিকারঃ নজরুল ইসলাম বাবু
সুরকারঃ আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল
গানটি লিখেছেন প্রয়াত নজরুল ইসলাম বাবু। গানটি করা হয়েছিল ১৯৮২ সালের দিকে ২৬ মার্চ বিটিভির বিশেষ অনুষ্ঠানের জন্য। ইপসা রেকর্ডিং স্টুডিওতে গানটি রেকর্ড করা হয়েছিল। রেকর্ডিস্ট ছিলেন শাফায়াত আলী খান। গিটার বাজিয়েছিল টিপু এবং প্রয়াত শেখ ইশতিয়াক। তবলায় দেবু ভট্টাচার্য। পারকেশনে ইমতিয়াজ। আর ভায়াব্রোফোন বাজিয়েছিল মানাম আহমেদ। সুরকার কি-বোর্ড আর বেজ গিটার বাজিয়েছিলেন। গানটি টানা আট-নয় বছর বিটিভির খবরের আগে ও পরে বাজানো হয়েছে।

৬। সুন্দর সুবর্ণ তারুণ্য লাবন্য
গীতিকার ও সুরকারঃ আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল।
গানটি লেখা এবং সুরও আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুলের। ১৯৮৭ সালে বিটিভির বিজয় দিবস অনুষ্ঠানের জন্য গানটি করেছিলেন।

৭। সেই রেল লাইনের ধারে
গীতিকারঃ মোহাম্মদ রফিকুজ্জামান
সুরকারঃ আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল
যুদ্ধের পর এমন অনেক মাকে দেখা গেছে দিনের পর দিন সন্তানের অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে থাকতে। সেই ভাব থেকেই মোহাম্মদ রফিকুজ্জামান গানটা লিখেছেন। সুর করেছিলেন আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল। সম্ভবত ১৯৮৫ সালে বিটিভির বিশেষ সঙ্গীতানুষ্ঠানের জন্য গানটি তৈরি করা হয়।

৮। মাগো আর তোমাকে
গীতিকারঃ গাজী মাজহারুল আনোয়ার
সুরকারঃ আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল

৯। একতারা লাগেনা আমার
গীতিকারঃ মনিরুজ্জামান মনির
সুরকারঃ আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল

সুরকার আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল জানান- ‘গানটি লিখেছেন মনিরুজ্জামান মনির। এ গানটিও আশির দশকের কোনো একসময় বিটিভির জন্য করা। ওই সময় আরও কিছু গান করি।’

১০। যদি মরণের পরে কেউ প্রশ্ন করে
গীতিকারঃ মোহাম্মদ রফিকুজ্জামান
সুরকারঃ খন্দকার নূরুল আলম

আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুলের লেখা ‘উত্তর দক্ষিণ পূর্ব পশ্চিম’, ‘আয় রে মা আয় রে’, ‘এই দেশ আমার সুন্দরী রাজকন্যা’, প্রয়াত নজরুল ইসলাম বাবুর লেখা ‘ও আমার আট কোটি ফুল’, ‘এই দেশটা আমার স্বপ্নে বোনা’, ‘যুদ্ধ এখনো থামেনি’, গাজী মাজহারুল আনোয়ারের লেখা ‘আমার বাজান গেল কই’ গানগুলি দেশের গান হিসেবে বেশ জনপ্রিয়। গানগুলির প্রতিটার সুরকার আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল। এ ছাড়া ১৯৮০-৮১ সালের দিকে বিটিভির স্বাধীনতা দিবসের বিশেষ অনুষ্ঠানে কবি শামসুর রাহমানের কথা এবং আলাউদ্দিন আলীর সুরে সাবিনা ইয়াসমীন মোট আটটি গান গেয়েছিলেন।

আমরা দেশকে ভালোবাসি। কারণ এদেশ আমাদের দেশ। এদেশ বাঙ্গালীদের দেশ। এদেশ অনেক প্রাণের বিনিময়ে অর্জিত। সঙ্গীতাঙ্গন এর পক্ষ থেকে আবেদন যাতে দেশের এই গান গুলো কোন জাতীয় অনুষ্ঠান এর জন্য সেট করা হয়। আমাদের বিটিভির সংবাদ শুরু হওয়ার সময় দেশের গানের একটি মিউজিক বাজে সেটা হলো “এক সাগর রক্তের বিনিময়ে বাংলার স্বাধীনতা আনলে যারা” ঠিক এরই মত করে জনপ্রিয় দেশের গান গুলো সংরক্ষণ হক। সবার জন্য শুভ কামনা। – মোঃ মোশারফ হোসেন মুন্না

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: