অনুষ্ঠিত হলো আব্বাসউদ্দিন আহমেদ স্মরণে সঙ্গীতানুষ্ঠান…

ঢাকার ইন্দিরা গান্ধী সাংস্কৃতিক কেন্দ্র গত ৩১শে অক্টোবর সন্ধ্যা ৬:৩০ মিনেটের সময় ঢাকার শাহাবাগে জাতীয় যাদুঘর সংলগ্ন কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে আব্বাসউদ্দিন আহাম্মদ এর জন্মদিন উপলক্ষে এক জাকজমক পূর্ণ সঙ্গীত সন্ধ্যার আয়োজন করা হয়। উক্ত সঙ্গীত সন্ধ্যায় সঙ্গীত পরিবেশন করেন আব্বাসউদ্দিন আহমেদ এর সুযোগ্য সন্তান মোস্তফা জামান আব্বাসী ও তার দৌহিত্র ডা: নাশিদ কামাল। উক্ত সঙ্গীত সন্ধ্যায় গানের সাথে তবলায় ছিলেন দেবো চৌধুরী, অক্টোপেড এ ছিলেন বিদাত রায়। বাশিঁ বাজিয়েছেন হাসান আলী, কিবোর্ডে বিনদ রায় এবং দোতারায় ছিলেন মোঃ সোলাইমান। দর্শকদের সামনে ডা: নাশিদ কামাল যে গান গুলো পরিবেশন করেন – নদীর কুল নাইরে, ঐ না মাধবী বনেতে, দিনের দিন দিন ফুরাইলো, ও ঢেউ খেলেরে, নদীর নাম সই এবং ও কি গাড়িয়াল ভাই। উপস্থিত দর্শকবৃন্দ মনোমুগ্ধ হয়ে শুনেছে।

তার পর গান পরিবেশন করেন মোস্তফা জামান আব্বাসী। তিনি যে গানগুলো পরিবেশন করেন – ঐ মহাসিন্ধুর অপার থেকে, ফান্দে পরিয়া বগা কান্দেরে, ও কি বন্ধু কাজল ভ্রুমরা রে, প্রেম জানেনা রসিক কালাচান্দ, আবার ভালোবাসার স্বাদ জাগে এবং ধন ধান্য পুষ্পে ভরা।
মোস্তফা জামান আব্বাসী এ বাংলা ওপার বাংলা দুই বাংলায় গায়ক ও লেখক হিসেবে সু-পরিচিত। গায়ক ও সমাজকর্মী হিসেবে বাংলাদেশের একটি গুরুত্ববহ নাম মোস্তফা জামান আব্বাসী। প্রায় পঞ্চাশ এর বেশি ভিন্ন ভিন্ন বই তিনি রচনা করেছেন। তার বই এর মধ্যে গান, দর্শন, জীবনী, ভ্রমন, রচনাবলী এবং উপন্যাস। তিনি দীর্ঘ ১১ বছর জাতীয় মিউজিক সংঘ এর চেয়ারম্যান ছিলেন। ছিলেন বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর পরিচালক। বর্তমানে তিনি কাজী নজরুল ইসলাম এবং আব্বাসউদ্দিন আহমেদ রিসার্স সেন্টারে কর্মরত আছেন। ভারতে ক্লাসিক্যাল মিউজিকের উপর তিনি শিক্ষা নিয়েছেন ওস্তাদ মোঃ হুসাইন খুছরু, ওস্তাদ গোল মোহাম্মদ খান সহ আরো অনেকের কাছে। তিনি বাংলাদেশ টেলিভিশনের একজন জনপ্রিয় গায়ক। তিনি বিভিন্ন দেশে গান পরিবেশন এর জন্য ভ্রমন করেছেন। তার মধ্যে ভারত, জাপান, অস্ট্রেলীয়া, চায়না, কোরিয়া, মায়ানমার, ইউকে, ইউ এস এ, লিভিয়া, সৌদিআরব, পাকিস্তান, ইউ এস এস আর, মালায়শিয়া, ইরান, ইরাক, তুরকী ইত্যাদি দেশে। এজন্য পেয়েছেন অনেক পুরুষ্কার ও। মিউজিকের জন্য ১৯৯৫ সালে একুশে পদক অর্জন করেছেন। এপেক্স ফাউন্ডেশন পুরুষ্কার, আব্বাসউদ্দিন
গোল্ড মেডেল, মানিক মিয়া পুরুষ্কার, নজরুল একাডেমী পুরুষ্কার, জার্নালিজম পুরুষ্কার, চ্যানেল আই এর লাইফ টাইম এচিভমেন্ঠ পুরুষ্কার সহ আরো অনেক। সঙ্গীতকে ভালোবেসে যারা সঙ্গীতের সাথে মিশে আছে সঙ্গীতাঙ্গন এমন সব মহৎ মানুষকে নিয়ে কাজ করে। যারা সঙ্গীতের পাশে আছে তাদের পাশে সঙ্গীতাঙ্গন ছিল, আছে এবং থাকবে। সবার জন্য শুভ কামনায়। – মোঃ মোশারফ হোসেন মুন্না

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: