যখন আমি থাকবোনা…

সন্তানের জন্য পিতা মাতার স্নেহ ও ভালোবাসা তা আল্লাহ প্রদত্ত। সবাই সবার সন্তানকে খুব বেশি ভালোবাসে। সে যে পরিবেশেই থাকুক না কেন। যে যে কাজেই ব্যাস্ত থাকুক না কেন কাজ শেষে সংসার সন্তানদের কাছেই ফিরে আসে, আসতে হয়। শিল্পীদের বেলায়ও তার ব্যতিক্রম নয়। তারাও তাদের সন্তানের জন্য সময় রাখে শত ব্যাস্ততার মাঝেও। বলছি এমনই এক জনপ্রিয় শিল্পী আঁখী আলমগীরের কথা। আগামীকাল বিজয় দিবস। আর তার দুই মেয়ে কাল স্কুলের অনুষ্ঠানে যাবে। সেজন্য ভালোবাসায় কিছু অভিমান মিশিয়ে মেয়েদেরকে কিছু কথা বললো। আদরে যা বলেছে তা তার কাছে অন্যরকম চিন্তার জন্ম দিয়েছে। সে ভাবতে লাগলো অন্যকিছু। তিনি বলেন, মেয়েদের স্কুল প্রোগ্রাম কাল, গান নাচ ইত্যাদি, পোশাক থেকে শুরু করে ম্যাচিং ফুল চুড়ি স্যান্ডেলটাও গুছিয়ে দিচ্ছি। একটু রাগ করেই বললাম, নিজেরা এগুলো একটু শিখে নাও প্লিজ, আমি নিজেই প্রোগ্রাম নিয়ে দৌড়াচ্ছি, আর আমি কি সব সময় থাকবো? মেয়ে বললো, হ্যাঁ ,তুমিই তো করে দিবা সব? আর কেউ পারেনা তো তোমার মত, আর থাকবা না কেন? ….থমকে গেলাম । আসলেই তো একটা সময় আমি আর থাকবো না। ওদের জন্যে না ,কারো জন্যেই না, আমরা কেউই তো থাকবো না….চোখের কোন ভিজে উঠলো হঠাৎ, সবারই সব চলবে কিন্তু মেয়েগুলো কিভাবে চলবে। হয়তো সৃষ্টিকর্তা সব সন্তানকেই বাবা মা ছাড়াও চলতে শিখিয়েই দেন….তাই যেন হয় , তাই যেন হয়….ভালো থাকুক আমার সন্তান, আমাদের সবার সন্তান। আবেগী কথাগুলোর অন্তরালে ফুটে ওঠেছে স্নেহ ও ভালোবাসার ইঙ্গিত। আবার পৃথিবীর মায়া ছেড়ে চলে যাবার হাহাকার। আসলেই আমাদের চলে যেতে হবে, চলে যাব, এটাই বাস্তব সত্য। সঙ্গীতাঙ্গন এর পক্ষ থেকে আঁখি আলমগীরের পরিবারের সুস্থ্য সুন্দর সুখী জীবন কামনা করি। – মোঃ মোশারফ হোসেন মুন্না

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: