আইজিসিসি-র সঙ্গীত সন্ধ্যা…

বাংলাদেশ জাতীয় যাদুঘর সংলগ্ন কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে ডঃ শাহাদাত হোসাইন নিপু ও কমলিকা চক্রবর্তীকে নিয়ে এক সঙ্গীত সন্ধ্যার আয়োজন করা হয়। ১২ ডিসেম্বর সন্ধ্যা ৬:৩০ মিনিটের সময় উক্ত অনুষ্ঠানের কার্যক্রম শুরু করা হয়। এতে কবিতা আবৃত্তি করেন শাহাদাত হোসাইন নিপু ও দেশের গান পরিবেশন করেন কমলিকা চক্রবর্তী। বাদ্যকর হিসেবে তবলায় ছিলেন রবীন্দ্রনাথ পাল। কিবোর্ডে পার্থ প্রিতম আচার্য। পলাশ চক্রবর্তী ছিলেন অক্টোপেডে। গিটার বাজান মিঠু কুরাইশি। এ সময় ড: শাহাদাত হোসাইন যে কবিতা গুলো আবৃতি করেন তাহলো – এইতো আমরা এখানে বসে আছি পিতা, মুজীব আমার স্বপ্ন সাহস মুজীব আমার পিতা, দেখি নাই আমি নেতাজি সুভাষ, দেখেছি শেখ মুজীব, গর্জে ওঠো বাংলাদেশ, স্বাধীনতা এই শব্দটা কিভাবে আমাদের হলো, এপাড়ে ভারত ও পাড়ে বাংলাদেশ ইত্যাদি। আর কমলিকা চক্রবর্তী যে গান গুলো গেয়েছেন তার তালিকায় আছে আটটি গান – একটি বাংলাদেশ তুমি জার্গত জনতা, সব ক’টা জানালা খুলে দাওনা, সুন্দর সুর্বণ তারুণ্যে লাভন্য, শুন একটি মুজীবরের থেকে, ধন্য ধানয় পুষ্পে ভরা, আগুনের পরশমনি, বলো বলো সবে, বন্দে মাতারাম, ইত্যাদি।

বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে খ্যাতিমান বাকপটু ব্যাক্তি, নাট্যশালার প্রোযোজক, লেখক, ও গভেষক ড: শাহাদাত হোসাইন কবিতা আবৃত্তি করেন। তিনি নাটকের উপর এম এ ডিগ্রি অর্জন করেন রবীন্দ্র ভারতী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এবং বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আই. সি. সি আর স্কলারশীপ ও ডক্টোরেট অর্জন করেন। তিনি থিয়েটার এর উপর প্রশিক্ষণ নিয়েছিলেন ভারতের নাম করা বিখ্যাত লোকদের কাছ থেকে আর তারা হলেন, কুমার রায়,বিভাস চক্রবর্তী এবং মনজ মিত্রা। তিনি বাকপটুর উপরে ও প্রশিক্ষণ নিয়েছিলেন ভারতের বিখ্যাত বাকপটুব্যাক্তি প্রদিপ ঘোষের কাছ থেকে, তার ২৫টি অডিও সিডি ৭টি গভেষণা ধর্মী ও ১২টি কবিতা এবং ছড়ার বই প্রকাশিত হয়েছে। তিনি বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বাংলাদেশ বেতার এর একজন শিল্পী। তিনি বিটিভিতে মানসকথা ও সংস্কৃতি শিরোনামে একটি অনুষ্ঠান করেন এবং বর্তমানে একই চ্যানেলে কবিতার দিগন্ত নামে একটি মাসিক অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন। বাংলাদেশ বেতারের আবৃত্তি বিভাগের একজন পরিচালক ও উপস্থাপকও তিনি। তিনি বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমী ও নজরুল ইন্সটিটিউট এর একজন বাকপটু ট্রেইনার। তিনি ২০১২ সালে অর্জন করেছেন ভারতের রুপসী বাংলা পুরুষ্কার, ২০০২ সালে স্বভূমি পুরুষ্কার পান। অতেন্দ্র স্মৃতি পুরুষ্কার পান ২০০৩ সালে। বাংলাদেশ থেকে তিনি অর্জন করেছেন রিসিথ শাহ সিমেন্ট পুরুষ্কার। তিনি বাংলা একাডেমীর ডেপুটি পরিচালক।

তার পর আসি কমলিকা চক্রবর্তী। কমলিকা চক্রবর্তী ভারতীয় শিল্পী কিন্তু বিবাহ সূত্রে তিনি বাংলাদেশী। তিনি একজন নজরুল সঙ্গীত শিল্পী। তবে রবীন্দ্র সঙ্গীত, আধুনিক ও ফোক সঙ্গীতেও তার অবদান আছে। তিনি নজরুল সঙ্গীতের তালিম নেন সঙ্গীতা বোস এর কাছ থেকে। তারপর বিখ্যাত নজরুল শিল্পী অঞ্জলী মুখপাধ্যায় এর কাছ থেকে ছয় বছর প্রশিক্ষণ নিয়ে ডিপলমা সার্টিফিকেট অর্জন করেন। তিনি পন্ডিত দিনানাথ মিসরা, পন্ডিত অজয় চক্রবর্তী, হৈমন্তি শুক্লা ও কালায়ন সেন ভরত এর কাছ থেকে হিন্দুস্তানি ক্ল্যাসিক্যাল মিউজিকের উপরো শিক্ষা লাভ করেন। বাংলাদেশ ভারত এর বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে গুরুত্বপূর্ণ অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেছেন। তিনি তার প্রথম রবীন্দ্র সঙ্গীতের এ্যালবাম প্রকাশ করেন রাগা মিউজিক থেকে। তিনি একটি মিউজিক ভিডিও করেছেন বঙ্গকন্যার মুখ শিরোনামে। শেখ হাসিনার বাবা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব স্মরণে। এই গানটি ১৫ ই আগষ্ট ২০১৭ সালেই টিভিতে দেখানো হয়। – মোঃ মোশারফ হোসেন মুন্না

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: