কানাডা থেকে ‘ফোবানা এ্যাওয়ার্ড’ পেলেন কামাল আহমেদ…

কথায় আছে সময় এবং স্রোত নাকি কখনো থেমে থাকেনা। তেমনি কারো জীবনের চাকা ও থেমে থাকেনা। এটা চলতেই থাকে তার নিজ গতিতে। তখন হয় সেটা ক্ষ্যন্ত যখন দেহটা থাকেনা জ্যান্ত। তাই পৃথিবীটা হলো আনন্দ আর উপভোগের আশ্রম। সেখানে থেকে বিনোদনের মাঝে জীবনকে উপভোগ করতে সঙ্গীত প্রেমীরা ডুবে আছেন সুর আর তালের মহিমায়। তেমনি একজন শিল্পী কামাল আহমেদ। বাংলাদেশ ও বহির্বিশ্বে বেতার সম্প্রচারে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য বহির্বিশ্ব কার্যক্রম, বাংলাদেশ বেতারের পরিচালক, কামাল আহমেদকে সম্প্রতি ফোবানা (ফেডারেশন অব বাংলাদেশী এসোসিয়েশন ইন নর্থ আমেরিকা, কানাডা) এ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়।

ফোবানা হচ্ছে উত্তর আমেরিকা অঞ্চলে বসবাসরত বাংলাদেশী নাগরিকদের বৃহত্তর পেশাজীবী এবং অরাজনৈতিক সামাজিক সংগঠন। কানাডা ভিত্তিক এ সংগঠন দীর্ঘদিন যাবৎ উত্তর আমেরিকায় বাংলাদেশী সংস্কৃতির পৃষ্ঠপোষকতা করেছে। প্রতি বছর ফোবানা তাদের দেশপ্রেমের দায়িত্ববোধ থেকে বাংলাদেশী সম্মানিত ব্যক্তিদের সম্মাননা প্রদান করে থাকে। এ বছর তারা ৩১তম ফোবানা সম্মেলনে সম্মানিত অতিথি হিসেবে কামাল আহমেদ-কে নির্বাচিত করেছে। গত সেপ্টেম্বর ২০১৭তে কামাল আহমেদকে এই মনোনয়ন প্রদান করা হয়, কিন্তু ভিসা জটিলতার কারণে তিনি তখন কানাডা যেতে পারেননি। প্রেক্ষিতে সেপ্টেম্বর মাসে অনুষ্ঠিত ফোবানা এ্যওয়ার্ড প্রদান অনুষ্ঠানে গিয়ে তার পক্ষে এই পদক গ্রহণ করা সম্ভব হয়নি।

সম্প্রতি আওয়ামী লীগ অব কানাডা এবং সার্বজনীন বিজয় দিবস উদযাপন কমিটি কানাডার আমন্ত্রনে কামাল আহমেদ কানাডা সফর করেন এবং সংস্থা দুটি আয়োজিত অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন। উল্লেখ্য, ফোবানা, কানাডার যুগ্ম আহ্বায়ক এবং আওয়ামী লীগ অব কানাডার সাধারন সম্পাদক মোহাম্মেদ আব্দুস সালাম এই সফর কালীন বহির্বিশ্ব কার্যক্রমের পরিচালক কামাল আহমেদের হাতে ফোবানা এ্যাওয়ার্ড প্রদান করেন। বাংলাদেশ বেতার থেকে কোন কর্মকর্তার আর্ন্তজাতিক পরিমন্ডল থেকে এটিই প্রথম পদক প্রাপ্তি; যা বেতার ইতিহাস এক বিরল ঘটনা। এই পদক প্রাপ্তি শুধু কামাল আহমেদ’কে নয় বাংলাদেশ বেতার, তথা বহির্বিশ্ব কার্যক্রমের ভাবমূর্তি ও গ্রহনযোগ্যতাকে সমুন্নত করেছে। এছাড়াও কামাল আহমেদ ২০১০ সালে ‘সার্ক কালচারাল পদক’, ২০১৫ সালে ‘বঙ্গবন্ধু গবেষণা ফাউন্ডেশন পদক’, ২০১৭ সালে ভারতের মহারাজা বীর বিক্রম বিশ্ববিদ্যালয় হতে ‘অদ্বৈত মল্লবর্মন পদক’ এবং ২০১৭ সালে ভারত হতে ‘বীর শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত পদক’ লাভ করেন। – মোঃ মোশারফ হোসেন মুন্না

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: