Press "Enter" to skip to content

‘গানের দেশ ফেরা’ কাজী তিতাস এর সুরে পুতুল…

আজ আবার গানেরই দেশে
যেতে দাও,
সুরে সুরে গানে গানে
কত যে মনেরি কথা।।
যেই গান মিশে গেছে
রক্তে আমার
কি করে ভুলি তারে—–

এমনই সুন্দর কথা আর মনকে ব্যথিত করা সঙ্গীতের প্রেম অন্তরে জাগ্রত করার সুরে গাইলেন কামরুন্নাহার পুতুল। ভালোবাসা দিবসকে সামনে রেখে সম্পূর্ণ ব্যাতিক্রম ধর্মী একটি গানের সৃষ্টি হয়েছে। যার কথা লিখেছেন সাদাফ হোসাইন মন্জুর ও সঙ্গীতায়জন করেছেন বাপ্পা মজুমদার আর কন্ঠের সুরেলা ধ্বনিতে গানটি গেয়েছেন কামরুন্নাহার পুতুল। গানটিতে প্রাণ সঞ্চার করেছেন অর্থাৎ গানটিকে সুর করেছেন বাংলাদেশের একজন প্রকৃত সঙ্গীত প্রেমীক যিনি লন্ডনে থেকেও বাংলাদেশের কথা, দেশের মানুষের কথা, দেশের সঙ্গীতের টান কিছুই ভুলে যাইনি কখনো। একের পর এক সঙ্গীত নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। আর তিনি হলেন আমাদের সবার পরিচিত শিল্পী, সুরকার ও গীতিকার কাজী তিতাস। গানটি নিয়ে কাজী তিতাস সঙ্গীতাঙ্গনকে বলেন যে, গানটির মধ্যে একটি নতুনত্ব খুঁজে পাবে শ্রোতারা। এটি একটি কাহিনী মূলক গানের সাদৃশ্যরূপ। এই গানের পেছনে একটি ব্যাথার কাহিনি আছে। আমি গান থেকে প্রায় বিশ বছর দুরে সরে ছিলাম যদিও কষ্ট হয়েছে থাকতে। কিন্তু সঙ্গীতের প্রেম সব সময় আমার অন্তরে বিদ্যমান ছিল। তার পর আবার ফিরে এলাম গানে, এসে এই গানটি সুর করলাম। গত তিন বছর ধরে আমি গানের প্রতি শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা রেখে অনেক সিঙ্গেল গান করেছি। এই গানটির ভিডিওতে যে গিটারটি দেখা যায় তার কথা না বললেই নয়। এই গিটারটি যে দিন কিনলাম এবং যখন পারসেলে গিটারটি বাসায় দিয়ে গেলো আমার চোখ থেকে শুধু পানি ঝড়ছিলো। এবং সেই দিনই এই গানটির জন্ম হয়। গানটি রিলিজ হলো জি- সিরিজ এবং টেলেন্ট এন্ড ক্রিয়েটিভ থেকে। সবার জন্য শুভ কামনা ও গানটি শুনার আমন্ত্রণ। গানের প্রতি একজন শিল্পীর আবেগ অনুভূতি ও গভীর ভালোবাসা কতটা যে গভীর তা কাজী তিতাস এর কথায় বুঝা যায়। গানের মমত্ববোধ তাকে সব সময় কাছে টানে। তার জন্য শুভ কামনা হেপি ভ্যালেনটাইন্স ডে। – মোঃ মোশারফ হোসেন মুন্না

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: