ঐন্দ্রিলা আহমেদ ও মুরাদ নূর গান বাঁধলেন বাবাকে নিয়ে…

পৃথিবীর সব সন্তানরাই তার বাবাকে ভালবাসে। বাবার ভালবাসা, আদর্শকে নিজের মধ্যে ধারন করে কিছু সৃষ্টিও করেন। বাংলা চলচ্চিত্রের প্রয়াত মহানায়ক বুলবুল আহমেদর মেয়ে ঐন্দ্রিলা আহমেদ। বাবার আদর্শকে হৃদয়ে ধারন করে অভিনয়, বাবার স্মৃতি সংরক্ষনে কাব্যগ্রন্থ ও প্রামাণ্য চিত্র। কিন্তু এবার বাবার ভালবাসায় সিক্ত হয়ে বাবাকে নিয়ে গান লিখলেন তাঁর মেয়ে অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা আহমেদ।

সম্প্রতি মুরাদ নূর ও ঐন্দ্রিলা আহমেদের সুরে রাজধানীর একটি স্টুডিওতে গানটির রেকর্ডিং সম্পন্ন হয়েছে।

“আমি তোমার উত্তরসূরী
আমি তোমায় নিয়ে গর্ব করি”

এমন কথায় “উত্তরসূরী” শিরোনামের গানটি ঐন্দ্রিলা নিজেই গেয়েছেন। সঙ্গীতায়োজনে ছিলেন রাজন সাহা।

উত্তরসূরী নিয়ে ঐন্দ্রিলা আহমেদ বলেন – মহানায়ক এর জন্যই আজকের ঐন্দ্রিলা আমি। আমিই তাঁর উত্তরসূরী। আমি জাত অভিনেত্রী, গায়িকা নই। একান্তই নিজের জন্য গান গাই। দেশে আসার পরেই মুরাদ নূর আর আমার একসাথে কয়েকটি গান বাঁধার প্লান ছিলো। ফেসবুকে লেখা কবিতাই নূর সুরের কথা বললো, আমিও সানন্দে রাজী হলাম। তারই স্বপ্নের ফসল উত্তরসূরী। পৃথিবীর সকল বাবাদের জন্য গানটি করা। তাই বিশ্বাস করি আমার মতো সকল শুদ্ধ সন্তানই গানটি গেয়ে, শুনে অন্তরে লালন করে গর্বিত হবেন।

মুরাদ নূর বলেন, আমি ঠিক আমার মতো না হলে কোনো কাজই করি না। সন্তান হয়ে বাবার জন্য গান বাঁধাটা ছিলো আমার স্বপ্ন। ঐন্দ্রিলা আমি সেই স্বপ্ন স্বার্থক করতেই উত্তরসূরীর সৃষ্টি। আমাদের প্লান ছিলো আগে অন্য গান করবো, পরে বাবার গানটা করবো। হুট করেই একদিন ঐন্দ্রিলা বলে নূর বাবার জন্য একটা কবিতা লিখছি, ফেসবুকে পোস্ট করেছি, দেখেন কেমন হলো.! কবিতা পড়ে এটাকেই সুর করতে মনে চাইলো। পরে কবিকে অফার করলাম যে বাবার কাজটাই আগে করি, বন্ধু রাজন সাহা আর আমার পাগলামিতে হয়ে গেলো উত্তরসূরী। গানটি ঐন্দ্রিলার লেখনী ও শুদ্ধ গায়কীতে পূর্ণতা পেয়েছে শতভাগ। মহানায়কের আর্কাইভে স্থান পেয়ে আমি আনন্দিত, আমি গর্বিত।

আসছে বাবা দিবসে দেশের শীর্ষ স্থানীয় প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান থেকে উত্তরসূরী প্রকাশিত হবে। বাকী গানগুলোরও কাজ এগুচ্ছে, এমনটাই জানান সুরকার মুরাদ নূর। – রবিউল আউয়াল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: