তথ্যপ্রযুক্তি আইনে গ্রেফতার আসিফ আকবর…

বাংলা গানের যুবরাজখ্যাত কন্ঠশিল্পী আসিফ আকবর গ্রেফতার। তথ্যপ্রযুক্তি আইনে দায়ের করা একটি মামলায় গ্রেফতার হয়েছেন কণ্ঠশিল্পী আসিফ আকবর। মঙ্গলবার দিবাগত রাত দেড়টায় পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) একটি টিম তাকে এফডিসি সংলগ্ন তার স্টুডিও থেকে গ্রেফতার করে।

মোল্যা নজরুল ইসলাম জানান, সুরকার ও কণ্ঠশিল্পী শফিক তুহিনের দায়ের করা তেজগাঁও থানার একটি মামলায় তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মামলা নম্বর ১৪। তাকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

সোমবার সন্ধ্যায় (৪ জুন) দায়ের করা এ মামলায় আসিফ আকবর ছাড়াও আরও ৪/৫ জন অজ্ঞাত আসামি রয়েছে বলেও জানায় পুলিশ।

মঙ্গলবার দিবাগত রাতে তল্লাশির সময় আসিফ আকবরের স্টুডিওতে এক বোতল টাকিলা আর এক কেস হেনিকেন বিয়ার পাওয়া যায়। তবে তিনি তার মদ্যপানের লাইসেন্স আছে বলে জানান। তিনি কর্মকর্তাদের এ-সংক্রান্ত লাইসেন্সের একটি কপিও দেখান। সিআইডির কর্মকর্তারা লাইসেন্সটি যাচাই করার জন্য একটি কপি নিয়ে গেছেন।

শফিক তুহিন এজাহারে অভিযোগ করেছেন, গত ১ জুন আনুমানিক রাত ৯টার দিকে চ্যানেল ২৪-এর সার্চ লাইট নামের নুসন্ধানী প্রতিবেদনের মাধ্যমে তিনি জানতে পারেন, আসিফ আকবর তার অনুমতি ছাড়াই তার সংগীতকর্মসহ অন্যান্য গীতিকার, সুরকার ও শিল্পীদের ৬১৭টি গান সবার অজান্তে বিক্রি করেছে। পরে তিনি বিভিন্ন মাধ্যমে যোগাযোগ করে জানতে পারেন, আসিফ আকবর আর্ব এন্টারটেইনমেন্টের চেয়ারম্যান হিসেবে অন মোবাইল প্রা. লি. কনটেন্ট প্রোভাইডার, নেক্সনেট লি. গাক মিডিয়া বাংলাদেশ লি. ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে গানগুলো ডিজিটাল রূপান্তরের মাধ্যমে ট্রু-টিউন, ওয়াপ-২, রিংটোন, পিআরবিটি, ফুলট্রেক, ওয়াল পেপার, অ্যানিমেশন, থ্রি-জি কন্টেন্ট ইত্যাদি হিসেবে বাণিজ্যিক ব্যবহার করে অসাধুভাবে ও প্রতারণার মাধ্যমে বিপুল অর্থ উপার্জন করেছে। তল্লাশি করছেন সিআইডির কর্মকর্তারা।
এজাহারে তিনি আরও উল্লেখ করেন, পরে ওই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে তিনি গত ২ জুন রাত ২টা ২২ মিনিটে তার ব্যক্তিগত ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে অনুমোদন ছাড়া গান বিক্রির এই ঘটনা উল্লেখ করে একটি পোস্ট দেন। তার ওই পোস্টের নিচে আসিফ আকবর নিজের একটি অ্যাকাউন্ট থেকে অশালীন মন্তব্য ও হুমকি দেন। পরের দিন রাত ৯ টা ৫৯ মিনিটে আসিফ আকবর তার প্রায় ৩২ লাখ লাইকার সমৃদ্ধ ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে লাইভে আসেন।
৫৪ মিনিট ৩৪ সেকেন্ড লাইভ ভিডিওর ২২ মিনিট থেকে তার বিরুদ্ধে অবমাননাকর, অশালীন ও মিথ্যা-বানোয়াট বক্তব্য দেন। ভিডিওতে আসিফ আকবর তাকে (শফিক তুহিন) শায়েস্তা করবেন এ কথা বলার পাশাপাশি ভক্তদের উদ্দেশে বলেন, তাকে যেখানেই পাবেন সেখানেই প্রতিহত করবেন। এই নির্দেশনা পেয়ে আসিফ আকবরের ভক্তরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাকে হত্যার হুমকি দেয়। আসিফ আকবরের এই বক্তব্য লাখ লাখ মানুষ দেখেছে। তিনি উসকানি দিয়েছেন। এতে তার (শফিক তুহিন) মানহানি হয়েছে।

আসিফকে তথ্যপ্রযুক্তি আইনে গ্রেফতারের পর সিআইডি রিমান্ডের আবেদন করলে রিমান্ড আবেদন বাতিল, জামিন আবেদন না মঞ্জুর করা হয়।

আসিফকে তথ্যপ্রযুক্তি আইনে গ্রেফতার করার পর সঙ্গীত জগতের অনেকেই অনেক মন্তব্য করেন।

প্রখ্যাত গীতিকার কবির বকুল বলেন, আসিফ আকবর আর শফিক তুহিন আমার খুব স্নেহের দুই ছোট ভাই। দুজনই প্রতিভাবান, যার যার ক্ষেত্রে। জনপ্রিয়তা, সম্মান সব প্রাপ্তিই তাদের ঝুলিতে। দুজন ভালো বন্ধুও ছিলেন বটে। কিন্তু কি হয়ে গেল এমন, যার জন্য আজ সবকিছু ওলোটপালোট। যে পরিস্থিতি আজ তৈরি হয়েছে, সেটা কি কোনো সমাধান এনে দেবে? শফিক তুহিন আমরা কি এর সমাধান করতে পারি না? তুমি চাইলে সম্ভব। তোমার নমনীয়তা, হয়তো একটা পথ বের করে দেবে। একজন শিল্পীর কাছে আরেকজন শিল্পীর জন্য আমার এ আর্তি।

খ্যাতিমান সুরকার ও সঙ্গীতশিল্পী শওকত আলী ইমন বলেন, আসিফ ও তুহিন দুজনই আমার স্নেহভাজন। দুই ভাইকে নিয়ে আমি বসবো। আশা করি সহশিল্পীরা থাকবেন। আসিফ ঘরে ফিরছে ইনশাল্লাহ্।

শাহনাজ রহমান স্বীকৃতি বলেন, কি যে বলবো ! মন একেবারেই ভালো নেই। তুহিন ভাই আমার যেমন আপন… আসিফও আমার ঠিক তেমন আপন। মনে হচ্ছে এক বোনের ২ভাই যুদ্ধ লেগেছে কিন্তু ভেবে পাচ্ছিনা আমি কার পক্ষে যাবো? রেষারেষি যে এ পর্যায়ে যাবে তা কল্পনাও করিনি। যা হবার হয়েছে ভাই তোমরা শান্ত হও। আমার চাওয়া আসিফ ঘরে ফিরে আসুক তোমারা আগের মত ভাই ভাই হয়ে যাও। তোমাদের বড্ড বেশী ভালোবাসিরে……

এজাহারে শফিক তুহিন আরও উল্লেখ করেন, বিষয়টি সংগীতাঙ্গনের সুপরিচিত শিল্পী, সুরকার ও গীতিকার প্রীতম আহমেদসহ অনেকেই জানেন। – রবিউল আউয়াল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: