Press "Enter" to skip to content

সঙ্গীত দিবসে সঙ্গীতজ্ঞদের বাণী…

সঙ্গীত হলো এক প্রকার প্রেম। যার প্রেমে প্রেমিক হলো অগনিত। এ কেমন প্রেম যে প্রেম থেকে ধোকা খাওয়ার সুযোগ নাই। সঙ্গীতের প্রেমে মন মজিলে ভালোবাসার নিগর তথ্য পাওয়া যায়। কারণ সঙ্গীত হৃদয়ের কথা বলে। ভালোবাসার কথা বলে। আর সেই সঙ্গীতের জন্মদিন হিসেবে আজ বিশ্ব সঙ্গীত দিবস পালিত হচ্ছে সারা বিশ্বে। সঙ্গীত দিবসে সকল সঙ্গীত প্রেমীদের জানাই সঙ্গীতের শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা। সঙ্গীত এর জন্মদিনে সঙ্গীত প্রেমীদের সাথে কথা হয় সঙ্গীতাঙ্গন অনলাইন পত্রিকার। জানা যায় সঙ্গীত প্রেমীদের মনের কথা।

সঙ্গীত প্রেমীক খুরশিদ আলম বলেন, সঙ্গীত হলো আমার প্রাণ। সঙ্গীতকে বুকে নিয়েই বেচেঁ আছি কত কাল। সঙ্গীতকে বড় ভালোবাসি। মরার আগ পর্যন্ত সঙ্গীতকে আকড়ে ধরে বাচঁতে চাই। সবাইকে সঙ্গীত দিবসের শুভেচ্ছা জানাই। বেশি বেশি বাংলা সঙ্গীতের চর্চা হোক সেই কামনা করি। মানুষ যাতে বেশি বেশি বাংলা গান শুনে সেই জন্য সবাইকে ভালো ভালো গান উপহার দেবার কথা ব্যাক্ত করে সঙ্গীতাঙ্গনকে ধন্যবাদ জানাই।

সঙ্গীতের পরশ লেগেছে যার মনে, কি করে সে থাকবে সঙ্গীত বিহনে। এমনই এক সঙ্গীত প্রেমিকের সাথে কথা হয়। আর তিনি হলেন সবার প্রিয় শিল্পী সুবীর নন্দী। তিনি বলেন, সঙ্গীত একটি বিনোদন যার মোহ মায়া নয় তার প্রেমই কাছে টানে। সঠিক সুস্থ ধারার বিনোদন আগামীতে আসুক। যারা তরুণ প্রজন্মের গায়ক গায়ীকা বলবো না তারা খারাপ গায়, তবে আরো ভালো করার চেষ্ঠা করলে ক্ষতি কি? আধুনিক বিশ্বে নতুন ধারার বাদ্যযন্ত্র আবিস্কার হয়েছে। মনোরম অবস্থা তৈরি হয়েছে। যা আমাদের সময় ছিলো না। আমাদের ছেলেমেয়েরা এখন তা পেয়েছে। ওরা ভালো করবে। ভালো করুক তাদের জন্য শুভ কামনা। আরো অনেক বেশি চর্চা করলে আরো ভালো ভালো কাজ উপহার দিতে পারবে। সঙ্গীতের প্রেম বুকে ধারণ করুক। এই প্রত্যাশায় করি। বিশ্ব সঙ্গীত দিবসে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাই।

জীবনকে সুন্দর ও প্রাণবন্ত রাখতে, জীবনকে উপভোগ করতে, সঙ্গীত যেনো একটি মহাঔষধ হিসেবে কাজ করে কারো কারো মনের অনুভূতি এটাই বলে। এমনটাই বলেন মেধাবী সঙ্গীত শিল্পী লিনু বিল্লাহ। তার কাছে সঙ্গীত তেমন, রুগির কাছে ঔষধ যেমন। তিনি বলেন, আমি মনে করি সঙ্গীত আমার প্রাণ। আমার রুগের ঔষধ। মানসিক, শারিরীক উভয় প্রকার রুগের কাজ করে সঙ্গীত। যার মন ভালো নেই আমি তাদের বলি গান শুনুন আপনার মন ভালো হয়ে যাবে। বিশ্ব সঙ্গীত দিবসে সবাইকে বেশি বেশি বাংলা সঙ্গীতের সাথে থাকার অনুরোধ করি। বাংলা গান শুনুন। কারণ এটা আমাদের ঐতিহ্য, এটা আমাদের দেশের সংস্কৃতি। সবাইকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।
বিশ্ব সঙ্গীত দিবস যেনো একটা দিবস না শুধু, এটা যেনো একটা শিল্প। এর চর্চা ও প্রচারে কাজ করেন দেশের অনেক মেধাবীগণ। সবার সুন্দর ও সুস্থ্য জীবন কামনা করি। সঙ্গীতাঙ্গনের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। – মোশারফ হোসেন মুন্না

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: