হায়দ্রাবাদে বাংলা সংস্কৃতি চর্চায় ‘দি বাঙ্গালী সারকেল’…

জীবনের প্রয়োজনে, জীবিকার প্রয়োজনে মানুষ পাড়ি দেয় বহুদূর, কিন্তু বুকের মধ্যে বয়ে বেড়ায় তার ভাষা ও সংস্কৃতি। নিজের সংস্কৃতির প্রতি সেই ভালোবাসা থেকেই একদল বাঙালী হায়দ্রাবাদের বুকে গড়ে তুলেছিলেন ‘The Bengali Circle’ নামের একটি দল যাদের মূল উদ্দেশ্য ছিল বাংলা সংস্কৃতির চর্চা ।

তাদেরই উদ্যোগে হায়দ্রাবাদের অন্যতম সাংস্কৃতিক পীঠস্থান শিল্পরমম্ এ অনুষ্ঠিত হলো দুদিনব্যাপী বঙ্গমেলা। যেখানে শহরের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মিলিত হয়েছেন বহু বাঙালী। দলীয় নাচের সুন্দর পারফর্ম দেখে আনন্দ উপভোগ করেন সম্মুখ শ্রুোতারা। গান পরিবেশন করেন, মঞ্চ নাটক পরিবেশন করা হয়। যা মনোমুগ্ধকর পরিবেশে শ্রুোতারা দেখেন। নাটকের পাশাপাশি ছিল রসনাতৃপ্তির আয়োজন। ২১শে জুলাই সন্ধ্যা ৬ টায় উলুধ্বনি ও ঢাকের তালে বঙ্গমেলার শুভসূচনা হয়। দুদিনব্যাপী এই সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছেন বহু শিল্পীরা। তাঁদের মনোমুগ্ধকর পরিবেশনা মেলাকে আরও প্রানবন্ত করে তুলেছে। কলকাতা থেকে এই মেলায় অংশগ্রহণ করেন বিশিষ্ট নজরুল সংগীত শিল্পী সোমঋতা মল্লিক। তাঁর কন্ঠে ‘আমি বাংলায় গান গাই’ গানটি শ্রোতাদের মুগ্ধ করে। হায়দ্রাবাদে এরকম একটি মেলা করতে পেরে স্বভাবতঃ খুশী আয়োজকরা। বড়োদের পাশাপাশি কচিকাঁচাদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ বাংলা সংস্কৃতির উত্তরাধিকার সম্পর্কে আমাদেরকে নিশ্চিন্ত করে। আজকে যারা শিশু আগামীকাল তারাই হবে আমাদের ভবিষৎ কর্ণধার। তাদের হাতে সংস্কৃতির চাবি দেখে নিশ্চিত ভাবে বলা যায় আমাদের সংস্কৃতিকে তারা বাচিঁয়ে রাখবে। নাচ,গান, আর মঞ্চ নাটক পরিবেশনের মাধ্যমে সফল হয়েছে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি। শিক্ষনীয় এমন সব অনুষ্ঠানের কামনা করেন সকল দেশের সকল মানুষ। লালণ করতে চায় অন্তরে সুপ্ত প্রতিভার জাগরণ। তাদের
জন্যই ভালোবাসা সিমাহীন, তাদের জন্য যারা এমন ধরণের আয়োজনে সংস্কৃতির প্রসারণে কাজ করে যায়। সঙ্গীতাঙ্গনের পক্ষ থেকে তাদের জানাই শুভেচ্ছা, অভিনন্দন ও এগিয়ে যাবার প্রেরণা। – মোশারফ হোসেন মুন্না

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: