Press "Enter" to skip to content

এ আর রহমান কেন আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলেন ?...

আত্নহত্যা করার পিছনে অবশ্যই কোন না কোন কারণ থাকে। তবে তা খতিয়ে দেখার মত সময় হয়তো কারো থাকেনা। তবে সেই আত্নহত্যা যদি বিশেষ কেন মানুষের হয়! তাহলে প্রশাসনসহ আম জনতাও জানতে চায় তার পিছনের রহস্য কি ? এমনি এক চমকে উঠার মতোই শিরোনাম! বলিউডের সঙ্গীত অঙ্গনের প্রাণপুরুষ ধরা হয় যাকে তিনি যদি আত্নহত্যা করেন এটা কেমন খবর হতে পারে। তেমনি হয়েছে এ আর রহমানের ক্ষেত্রেও। তিনি যখন আত্মহত্যা করতে চান তখন একটু অস্বাভাবিক লাগে বটে। তবে অস্বাভাবিক হলেও ঘটনাটি সত্য। আর তা জানিয়েছেন উপমহাদেশের এই প্রখ্যাত সঙ্গীত পরিচালক নিজেই। হলিউডের ‘স্লামডগ মিলিওনিয়ার’ ছবিতে অসাধারন সঙ্গীতায়োজনের জন্য অস্কার পেয়েছেন এ আর রহমান। সঙ্গীত ক্যারিয়ারে বলা চলে দুনিয়ার সেরা স্বীকৃতি।
অথচ এই এ আর রহমানই মাত্র ২৫ বছর বয়সেই চেয়েছিলেন নিজের জীবন থেকে মুক্তি নিতে!
তিনি জানান, ২৫ বছর বয়সে আমার বাবা মারা যান। তার মৃত্যুর পর কিভাবে ঘুরে দাঁড়াতে হয় আমি বুঝতে পারিনি। তখন একসময় চেয়েছিলাম আমি নিজেও চলে যাই বাবার কাছে। বেঁচে থাকার মতো কোনো কারণ ছিলো না আমার কাছে। এমনই হতাশ ছিলাম।
রহমান আরও বলেন, শুধু তাই নয়, আমি আমার জীবনে ১২ থেকে ২২ বছরের মধ্যেই সব করে ফেলেছিলাম। দৈনন্দিন জীবন যাপনে তাই অনীহা চলে এসেছিলো। এমন পরিস্থিতি থেকে শুধু গানের মাধ্যমেই বেরিয়ে এসেছিলেন এই কিংবদন্তী। ধর্মান্তরিত হয়ে পরবর্তীতে দিলীপ কুমার থেকে নিজের নাম বদলে নেন এ আর রহমান। তারপর থেকেই জীবনে নতুন আলোর দেখা পান বলে জানান তিনি। ১৯৯২ সালে ‘রোজা’ ছবির সঙ্গীত পরিচালনা মাধ্যমে বলিউডে অভিষেক হয় এ আর রহমানের। তারপর থেকে ভক্তদের উপহার দিয়ে গিয়েছেন একের পর এক কালজয়ী গান। শাহরুখ খানের ‘দিল সে’ ছবির সঙ্গীত পরিচালনা করে জিতে নিয়েছিলেন প্রথম আইফা এওয়ার্ড। এটাই তার জীবনের এক বাস্তব অভিজ্ঞতা। – মরিয়ম ইয়াসমিন মৌমিতা

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: