Press "Enter" to skip to content

এখন সুস্থ আছেন সুজেয় শ্যাম...

একাত্তরে রণাঙ্গণের মুক্তিযোদ্ধাদের যে গানগুলো অনুপ্রেরণা জুগিয়েছিল, সেগুলোরই একজন সুরকার ও সঙ্গীত পরিচালক স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের সুজেয় শ্যাম।
২০১৪ সালে স্বাধীনতা দিবসে শুদ্ধ সুরে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সম্মুখে। এর সঙ্গীতায়োজনও করেছিলেন সুজেয় শ্যাম। স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শিল্পী হিসেবে স্বাধীনতার ৪৫ বছর পর মুক্তিযোদ্ধার সনদ পেয়েছেন সুজেয়। কিন্তু মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে কোনো ভাতা পান না এই শিল্পী। স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শেষ গান এবং পাকিস্তানের হানাদার বাহিনীর আত্মসমর্পণের পর প্রথম গানের সুর করেছেন তিনি।

স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রে থাকাকালে মোট নয়টি গানে সুর করেছিলেন সুজেয় শ্যাম, যেগুলো একাত্তরের জুন থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত গাওয়া হয়েছিল। এর মধ্যে রয়েছে ‘মুক্তির একই পথ সংগ্রাম’, ‘ওরে শোনরে তোরা শোন’, ‘রক্ত চাই রক্ত চাই’, ‘আজ রণ সাজে বাজিয়ে বিষাণ’। এ ছাড়া ছিল ‘বিশ্বপ্রিয়’র লেখা ‘আহা ধন্য আমার’, কবি দিলওয়ারের লেখা ‘আয়রে চাষি মজুর কুলি’। এর মধ্যে ‘রক্ত দিয়ে নাম লিখেছি’ এবং ‘বিজয় নিশান উড়ছে ওই’ গান দুটি যেকোনো জাতীয় দিবসের অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে আছে।
সুজেয় শ্যাম ১৯৪৬ সালের ১৪ মার্চ সিলেটে জন্মগ্রহণ করেন। দশ ভাইবোনের মধ্যে তিনি ষষ্ঠ। মা-বাবাও ছিলেন নজরুলসঙ্গীত শিল্পী। ছোট বোন, ভাইও বেতারে গাইতেন।
সুজেয় শ্যাম গিটার বাদক ও শিশুতোষ গানের পরিচালক হিসেবে ১৯৬৪ সালে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের চট্টগ্রাম বেতারে যোগ দেন। পরে বড়দের অনুষ্ঠান পরিচালনা শুরু করলেও ১৯৬৮ সালে ঢাকা বেতারে চলে আসেন। কাজ করেছেন বাংলাদেশ বেতারে। ২০০১ সালে বাংলাদেশ বেতার থেকে প্রধান সঙ্গীত প্রযোজক হিসেবে অবসরে যান। সুজেয় কাজ করেছেন চলচ্চিত্রে সঙ্গীত পরিচালক হিসেবেও। ‘হাছন রাজা’ চলচ্চিত্রে সঙ্গীত পরচালনা তাকে এনে দেয় প্রথম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার।
এই চলচ্চিত্রের একটি গানেও কণ্ঠ দিয়েছেন সুজেয়। পরবর্তী সময়ে ‘জয়যাত্রা’ ও ‘অবুঝ বউ’ চলচ্চিত্রের সঙ্গীত পরিচালনা করে ২০০৪ ও ২০১০ সালে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান তিনি।
স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের এই শিল্পী সঙ্গীতে শিল্পকলা পদক পান ২০১৫ সালে। একই বছর পান স্বাধীনতা সম্মাননা ও ভারত গৌরব সম্মাননা। ২০১৮ সালে তিনি একুশে পদক পেয়েছেন।
একুশে পদকপ্রাপ্ত বরেণ্য সুরকার, সঙ্গীত পরিচালক মুক্তিযোদ্ধা সুজেয় শ্যাম প্রোস্টেট ক্যান্সারে আক্রান্ত। প্রধানমন্ত্রীর আর্থিক সহযোগিতায় এই মুহূর্তে তিনি ভারতের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। নির্দিষ্ট একটি সময়ে তাকে ভারতে যেতে হয় চিকিৎসার জন্য। আবার দেশে ফিরে পেশাগত কাজও করেন তিনি। আবার ছুটে যান ভারতে। এভাবেই যেন চলছে সুজেয় শ্যামের জীবন।
সুজেয় শ্যাম বলেন, দিনগুলো ভালোভাবেই কাটছিলো। ভেবেছিলাম এভাবে সুস্থ থাকতে থাকতেই হয়তো এই সুন্দর পৃথিবী থেকে বিদায় নিতে পারবো। কিন্তু কখনো যে ক্যান্সারে আক্রান্ত হবো তা ভাবিনি। আর্থিকভাবে খুব সচ্ছল নই আমি। যে কারণে এই রোগের ব্যয়বহুল চিকিৎসা আমার জন্য অনেক কষ্টের ছিলো। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী পাশে দাঁড়ানোর কারণে এখন নিশ্চিন্তে চিকিৎসা নিতে পারছি। সঙ্গীতাঙ্গন এর পক্ষ থেকে গুণীী এই শিল্পীর জন্য শুভ কামনা। সুস্থ ও সুন্দর জীবন নিয়ে বেঁচে থাকুক আরো দীর্ঘদিন। – নিরব হাসান

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: