Press "Enter" to skip to content

নজরুল ও রবীন্দ্রসংগীতের এ্যালবামের মোড়ক উন্মোচন…

বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের নিবেদনে দুইদিন ব্যাপী প্রকাশনা অনুষ্ঠানের দ্বিতীয়দিনে ২১শে মার্চ ২০১৯ দুইটি এ্যালবামের মোড়ক উন্মোচন করা হয়। সৃজনশীল বাংলা গানের পরিচর্যা ও প্রসারের ধারাবাহিকতায় দ্বিতীয়দিন সন্ধ্যায় ধানমন্ডির ছায়ানট মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হলো সুস্মিতা দেবনাথ শুচি ও মোহিত খানের কণ্ঠে নজরুলসংগীতের যৌথ এ্যালবাম ‘নয়নের সেই সাধ’ এবং শুক্লা পাল সেতুর রবীন্দ্রসংগীতের ‘কাছে যবে ছিল’ এ্যালবামের মোড়ক উন্মোচন করলেন বিশিষ্ট সংগীতশিল্পী খায়রুল আনাম শাকিল এবং মিতা হক।

মোড়ক উন্মোচন ও প্রকাশনা অনুষ্ঠান শেষে এ্যালবামের শিল্পীরা সংগীত পরিবেশন করেন। প্রথমে রবীন্দ্রনাথের গান গেয়ে শোনালেন শুক্লা সেতু। তিনি গাইলেন – তুমি যে আমারে চাও, আমার মন চেয়ে রয়, বনে যদি ফুটল কুসুম, খেলাঘর বাঁধতে লেগেছি, যে কেহ মোরে দিয়েছ সুখ এবং আমি রূপে তোমায় ভোলাব না গান গুলি। রবীন্দ্রনাথের গানের পরে দ্বিতীয় পর্বে মোহিতের কন্ঠে নজরুলসংগীতের প্রথম গাওয়া গানটি ছিল – আমার আপনার চেয়ে আপন যে জন দ্বিতীয় গানটি নহে নহে প্রিয় গাইলেন সুস্মিতা শুচি। তারা দ্বৈতকন্ঠে শোনালেন – তুমি সুন্দর তাই চেয়ে থাকি প্রিয় এবং আকাশে আজ ছড়িয়ে দিলাম। তাদের গাওয়া অন্যান্য গান গুলি – বরষা ওই এলো বরষা, পদ্মার ঢেউরে, উচাটন মন, সখী সাজায়ে রাখ্ লো সহ কিছু গান।
প্রথম দিনের শিল্পী লাইসা আহমদ লিসা সহ সম্মিলিত ভাবে তিনশিল্পী ‘ও আমার দেশের মাটি’ গানটির মাধ্যমে অনুষ্ঠান শেষ করলেন। যন্ত্রানুষঙ্গে ছিলেন তবলায় অপূর্ব দাস, এসরাজে অসিত বিশ্বাস, মন্দিরায় প্রদীপ রায়, গিটারে রিচার্ড কিশোর এবং কি- বোর্ডে বিনোদ রায়।

অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক লুভা নাহিদ চৌধুরী। উল্লেখ্য প্রথমদিন লাইসা আহমদ লিসার কন্ঠে অতুলপ্রসাদ সেনের ‘কে গো গাহিলে’ অডিও এ্যালবামের প্রকাশনা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠান সবার জন্য উন্মুক্ত ছিল।

এ্যালবাম ও শিল্পী শুক্লা পাল সেতু-কে নিয়ে মিতা হকের মন্তব্য : শুক্লা পাল সেতু ১৯৯৯ এর জাতীয় রবীন্দ্রসংগীত সম্মিলনে কিশোর বিভাগে জেলা পর্যায়ে এবং চুড়ান্ত পর্যায়ে প্রথম মান পেয়ে সকলের দৃষ্টি কাড়তে সক্ষম হন। পরপর তিনবার সাধারন বিভাগে একই মান এবং জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহে স্বর্ণপদক লাভ করেন। নিজ এলাকা সিরাজগঞ্জের গুণীশিল্পী শ্রী রতনলাল সূত্রধর ও শ্রী ভরত চন্দধ প্রসাদের কাছেই সেতুর হাতেখড়ি। পরবর্তীতে সংগীত গুরু ওয়াহিদুল হকের কাছে রবীন্দ্রসংগীতে বিশেষ প্রশিক্ষন নেন তিনি। আমার আনন্দ এটি এক বিকালে ওয়াহিদুল হক একটি মেয়ের হাত আমার হাতে দিয়ে বললেন, মিতা সেতুর ভার তোমাকে দিলাম, ওকে তুমি গান শেখাবে। সেই থেকেই আমি জানলাম এই মেধাবী মেয়েটির সংগীতের প্রতি কতখানি গভীর টান! পার্থ সারথী সিকদারের কাছেও সেতু নিবিড় প্রশিক্ষণ লাভ করেন। নজরুল সংগীতেও সেতুর সমান পারদর্শিতা তাই
ছায়ানটের নজরুল সংগীত বিভাগ থেকে কৃতিত্বের সাথে সার্টিফিকেট কোর্স সপন্ন করেন। বর্তমানে ছায়ানটে শিক্ষক হিসাবে কর্মরত আছেন। নিভৃতচারী এই শিল্পীর গান শ্রোতার হৃদয় ছুঁয়ে যাবে এই প্রত্যাশা করি।

এ্যালবাম ও শিল্পী অভয়া দত্তকে নিয়ে মিতা হকের মন্তব্য : আমার দুই শিষ্য সুস্মিতা দেবনাথ শুচি ও মোহিত খান-এর নজরুলসংগীতের দ্বৈত সিডি প্রকাশিত হচ্ছে জেনে আমি আনন্দিত। আমি গান গুলো মন দিয়ে শুনেছি। শুচি ও মোহিত অত্যন্ত যত্ন নিয়ে গান গুলো পরিবেশন করেছে। স্বনামধন্য সংগীত পরিচালক দূর্বাদল চট্টপাধ্যায়ের সংগীতায়জন যথারীতি সাধুবাদ যোগ্য। শুচি ও মোহিত ধীরে ধীরে কঠিন অনুশীলনের মধ্য দিয়ে নিজেদের ঋদ্ধ করে চলেছে। আমি আশা করব ওদের সাবলীল গায়কী নতুন প্রজন্মের অনেককেই নজরুলসংগীত চর্চায় উৎসাহিত করবে। আমি ওদের সুদীর্ঘ সংগীত জীবন কামনা করি। এই সুযোগে আমি বেঙ্গল ফাউন্ডেশনকে বিশেষ সাধুবাদ জানাই সংগীতে নতুন প্রতিভাদের পাশে এসে দাঁড়াবার জন্য। – রোদেলা জয়ী

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *