Press "Enter" to skip to content

মাইলসের যুক্তরাষ্ট্র সফর…

মোশারফ হোসেন মুন্না।
এদেশের ব্যান্ড ইতিহাসে মাইলস অন্যতম একটি নাম। আশির দশকে যাত্রা শুরু করা এই ব্যান্ডটি পার করলো চার দশক। অসংখ্য জনপ্রিয় গানের স্রষ্টা এই ব্যান্ডটি নিজেদের ৪০ বছর উদযাপনের যাত্রা শুরু করতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র সফরের মধ্য দিয়ে। এই সফরে ৮টি কনসার্টে অংশ নেবে মাইলস। যুক্তরাষ্ট্র সফরের পাশাপাশি আরো কয়েকটি দেশে টানা কনসার্ট করার পরিকল্পনা রয়েছে ব্যান্ডটির। এমনটা গণমাধ্যমে জানান ব্যান্ডের অন্যতম সদস্য শাফিন আহমেদ।
চার দশক উদযাপনের এই আয়োজনের সমাপ্তি হবে ঢাকার কনসার্টের মধ্য দিয়ে। এই কনসার্টগুলোর আয়োজক যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী সঙ্গীতশিল্পী তানভীর শাহীন। মাইলস ব্যান্ডের বর্তমান সদস্যরা হলেন শাফিন আহমেদ, হামিন আহমেদ, মানাম আহমেদ, তূর্য ও জুয়েল। দীর্ঘ সঙ্গীত যাত্রায় এই ব্যান্ডটি অসংখ্য জনপ্রিয় গান উপহার দিয়েছে।
ব্যান্ডের উল্লেখযোগ্য গানগুলো হলো ফিরিয়ে দাও, প্রথম প্রেমের মতো, প্রথম কবিতা এসে, ভুলবো না তোমাকে, চাঁদ তারা সূর্য, স্বপ্নভঙ্গ, আর কতকাল খুঁজবো তোমায়, পলাশীর প্রান্তর, পাহাড়ি মেয়ে, অনাবিল বিশ্বাসে, ভালোবেসো না, জ্বালা জ্বালা, ধ্বিকি ধ্বিকি, সে কোন দরদীয়া ও হ্যালো ঢাকা। বাংলাদেশে মাইল্‌স হিসেবে তাদের প্রথম অংশগ্রহণ ১৯৮২ সালে। ঐ বছরই মাইল্‌স শিল্পকলা একাডেমী মিলনায়তনে ১৫০০ সঙ্গীত পিপাসু দর্শকের সামনে তাদের প্রথম সরাসরি কনসার্ট অনুষ্ঠিত করে। ১৯৮২ সালে স্টুডিও ভার্সনে তারা তাদের প্রথম এ্যালবাম বের হয় ‘মাইল্‌স’ শিরোনামে ইংরেজি ভাষায়। তাছাড়া তাদের প্রথম এ্যালবাম ‘এ স্টেপ ফারদার’ টিও ছিল ইংরেজিতে।
ঐ সময় কিছু লোক বলেছিল যে, মাইলস বাংলা গান রচনা করতে পারে না, তারপরই মাইলস তাদের প্রথম বাংলা মিউজিক এ্যালবাম বের করে ১৯৯১তে, এ্যালবামটির নাম ‘প্রতিশ্রুতি’। এই এ্যালবামে ‘চাঁদ তারা’ গানটি খুব জনপ্রিয় হয়েছিল। তাছাড়া বাকি গানগুলোও জনপ্রিয় হয়েছিল। ১৯৯৩ সালে তারা তাদের চতুর্থ মিউজিক (দ্বিতীয় বাংলা মিউজিক) এ্যালবাম ‘প্রত্যাশা’ বের করে, যা বিস্ময়কর সাফল্য অর্জন করে। “প্রত্যাশা” এ্যালবামটি বের হওয়ার কয়েক মাসের ভেতরেই তিন লক্ষ কপি বিক্রি হয়। “প্রত্যাশা” এখনও এই দেশে সবচেয়ে বেশি বিক্রি হওয়া মিউজিক এ্যালবাম।। মাইল্‌স-এর অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ছিলেন ফরিদ রশিদ যিনি বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাস জীবনযাপন করছে। এছাড়াও তাঁদের ব্যান্ডের সাথে যুক্ত ছিলেন, হ্যাপী আখন্দ, ফরিদ রশিদ, কামাল মাইনুদ্দিন, ল্যারি বারনাবি, মাহবুব রশিদ, মিল্টন আকবর এবং সাহেদুল হুদা।

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *