Press "Enter" to skip to content

হারিয়ে যাওয়া তিন জন…

-মোশারফ হোসেন মুন্না।

ওরে জন্মিলে মরিতে হবে–
কে আছো রে ভবে রবে–?
দুইদিন আগে না হয় পরে,
লইবা রে বিদায়—–!
আটকায়া রাখবে তোমায়
নাই রে কেহ নাই!।।
আপন স্বজন সব ছাড়িয়া
দিবারে উড়াল—-!
একা একা থাকতে হবে
তোমার চিরকাল!
এই পৃথিবী ভুলে যাবে
মনে করবেনা–!
আজকে আছো কালকে যখন
তুমি রবে না।
দুইদিন আগে না হয় পরে,
লইবা রে বিদায়—–!
আটকায়া রাখবে তোমায়
নাই রে কেহ নাই!।।

জন্ম নিলে মৃত্যু আসবেই। মৃত্যুর সাথেই জীবনের পরিসমাপ্তি ঘঠে। কিন্তু কিছু কিছু মহামানব আছে যারা মৃত্যুতে শেষ হযে যায় না। তাদের কর্ম তাদেরকে বাঁচিয়ে রাখে। তেমনি চলে যাবার পরে দেশের তিন মহামানবকে স্মরণ করবে এবারের ঈদ আয়োজনে।
ঈদ আয়োজনে নানা অনুষ্ঠানের পসরা সাজিয়েছে চ্যানেলগুলো। এরই ধারাবাহিকতায় খ্যাতিমান তিন শিল্পীর স্মরণে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল এনটিভি তিনটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। এতে থাকছে প্রয়াত কণ্ঠশিল্পী শাহনাজ রহমতুল্লাহ, আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল ও সুবীর নন্দী স্মরণে আয়োজন।
ঈদের পঞ্চম দিন বিকেল ৫টা ১৫ মিনিটে প্রচার হবে ট্রিবিউট স্মৃতিতে আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল। উপস্থাপনা করেছেন বীথি। প্রযোজনায় জোনায়েদ বিন জিয়া। এতে অংশগ্রহণ করেছেন অপু আমান ও হৈমন্তী রক্ষিত।
ঈদের ষষ্ঠ দিন বিকেল ৫টা ১৫ মিনিটে প্রচার হবে ট্রিবিউট স্মৃতিতে শাহনাজ রহমতুল্লাহ।
প্রযোজনায় হুমায়ূন ফরিদ। এতে গাইবেন কণ্ঠশিল্পী নদী, নন্দিতা, নাজু আখন্দ, স্বরলিপি ও বর্ণালী সরকার। এতে তারা গেয়ে শোনাবেন শাহনাজ রহমতুল্লাহর গাওয়া পুরনো ও জনপ্রিয় গানগুলো। এটি উপস্থাপন করেছেন নুঝহাত সাওম। ঈদের সপ্তম দিন রাত ৮টা ৩ মিনিটে রয়েছে সুবীর নন্দীর একক সঙ্গীতানুষ্ঠান দি লিজেন্ড। এটি প্রযোজনা করেছেন জুনায়েদ বিন জিয়া। উপস্থাপনায় তৌহিদা শ্রাবণ্য। গানের মানুষ প্রাণের মানুষ গুলো বেঁচে থাকুক সবার হৃদয়ে। সঙ্গীতাঙ্গন এর পক্ষ থেকে তাদের তিন জনের জন্য শান্তি কামনা করি।

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *