লোকসঙ্গীতের কিংবদন্তী গায়ক মোস্তফা জামান আব্বাসী-র জন্মবার্ষিকী…

“মাটির টানে যে সুর আসে হৃদয় মন পুরে,
সেই সুরেই যে আমাদের পরাণ আত্মা ভরে।”
– বাংলাদেশের সঙ্গীত ইতিহাসে আমাদের লোক সঙ্গীতের শিকড়দূত জীবন্ত কিংবদন্তী মোস্তফা জামান আব্বাসী। এদেশের সাধারণ মানুষের সুখ-দুঃখ আনন্দ-বেদনা এক কথায় মানুষ জীবনমুখী গানের সুরশ্রষ্ঠা প্রয়াত ‘আব্বাস উদ্দিন আহমেদ’। এদেশের লোকজ গান পল্লীগীতির কৃতীসাধ্য সাধক আব্বাস উদ্দিন। তারই যোগ্য উত্তরসূরী মোস্তফা জামান আব্বাসী।
তিনি শুধু একজন গায়কই নয় বাংলাদেশের লোক সঙ্গীতকে প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে পৌছিয়ে দেবার জন্য এক সুরেলা পুরুষ এবং একজন সাংস্কৃতিক গবেষক। এই কিংবদন্তী গায়ক ১৯৩৬ সালে ৮ই ডিসেম্বর জন্মগ্রহণ করেন। আজ ওনার ভুবন প্রকাশ ‘পবিত্র জন্মবার্ষিকী’।
বাবার আদর্শ নিষ্ঠায় নিজেকে গড়েছেন তিনি। অদ্ভুত সুন্দর সুমধুর কন্ঠে গেয়েছেন ভাটিয়ালি, ভাওয়াইয়া, আধুনিক, পল্লীগীতি সহ নানান ধাঁচের গান। বাংলাদেশের সঙ্গীত সম্রাজ্ঞী গানের উজ্বল নক্ষত্র ‘ফেরদৌসী রহমান’ মোস্তফা জামান আব্বাসীর একমাত্র বোন। মোস্তফা জামান আব্বাসীর সহধর্মিণী প্রফেসর আসমা আব্বাসী তিনি একজন শিক্ষাবিদ ও লেখিকা। ওনার দুই মেয়ে সামিরা ও শারমিনী আব্বাসী। সামিরা উচ্চশিক্ষার মাধ্যমে সঙ্গীত চর্চা ও গবেষণা করছেন। বাংলা লোক সাহিত্যর পুরোধা পুরুষ মোস্তফা জামান আব্বাসী সঙ্গীত ও গবেষণার ক্ষেত্রে অনেক অবদান রেখেছেন। বাংলাদেশ টেলিভিশন এর জন্ম লগ্ন হতেই তিনি জারি, সারি, দেহতত্ত্ব, মারফতি, মুর্শিদি, প্রাচীন লোকগীতি সহ সব ধরনের সঙ্গীত পরিবেশন করে আসছেন।
শুধু দেশে নয় আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও তিনি বাংলা লোকসঙ্গীতকে পরিচিত ও প্রশংসিত করেছেন। সঙ্গীতজ্ঞদের বিশ্ব অধিবেশনে তিনি বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। তিনি শিল্পকলা একাডেমী সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রধান দায়িত্বে ছিলেন। মোস্তফা জামান আব্বাসী ওনার সঙ্গীত ও লেখার মাধ্যমে জীবিত অবস্থায়ই পেয়েছেন হাজার সম্মানী পুরস্কার সহ মানুষের অফুরন্ত ভালবাসা। আজ ওনার জন্মদিনে কামনা করি এই ভালবাসা চিরদিন এভাবেই ওনার জীবনে ভরে থাক। তিনি বেঁচে থাকুক হাজার বছর আমাদের মাঝে। শুভ জন্মদিনে সঙ্গীতাঙ্গনের পক্ষ থেকে অনেক অনেক শুভ কামনা, ভালবাসা এবং শুভেচ্ছা।
অলংকরন – মাসরিফ হক…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: