Press "Enter" to skip to content

এখন গানের সাথে ভিডিও অবশ্যই দরকার – স্বনামধন্য সঙ্গীতশিল্পী আবিদা সুলতানা…

– কবি ও কথাসাহিত্যিক রহমান ফাহমিদা।
বাংলাদেশের জনপ্রিয় সঙ্গীতশিল্পী আবিদা সুলতানার নাম নিলেই যে কারো মনে বেজে উঠে তাঁর সেই জনপ্রিয় গানগুলি যেমন – বিমূর্ত এই রাত্রি আমার, তুমি চেয়েছিলে ওগো জানতে, হারজিৎ চিরদিন থাকবে, একি বাঁধনে বল ইত্যাদি আরও অনেক অনেক জনপ্রিয় গান! এই জনপ্রিয় শিল্পীর ২৩ আগস্ট জন্মদিন ছিল। সেই জন্মদিন উপলক্ষে সঙ্গীতাঙ্গনের সাথে কথা বলার সময় তিনি গান নিয়েও অনেক কথা বলেন –
– আপু,৮০/৯০দশকের গান আর এখনকার গানের মধ্যে তো অনেক পরিবর্তন এসেছে! যেমন আগে একটি টিভি চ্যানেল ছিল এবং রেডিওতে সারাক্ষণ গান বাজত। এখন অনেক টিভি চ্যানেল। তাছাড়া ইউটিউবে গান রিলিজ হচ্ছে এবং গানের ধারাটিও চেঞ্জ হয়েছে। অনেক নতুন শিল্পী এসেছে কিন্তু আপনাদের গানের মত বা মনে রাখার মত গান আসছেনা! অন্যদিকে গানের সাথে সাথে শিল্পীদের ভিডিও হচ্ছে! গানের এই পরিবর্তনকে আপনি কিভাবে দেখছেন ?
– এখন আসলে চেঞ্জ তো হচ্ছেই! সেটা বুঝতেও পারি। চেঞ্জ অবশ্যই হচ্ছে, চেঞ্জ হতেই হবে। কারণ চেঞ্জ না হলে তো আমরা সেই ৫০ দশকেই পড়ে থাকব তাইনা! টেলিভিশনের গান তো ৫০ দশকেই শুরু হয়েছিল। আমাদের গান যেমন ৭০ দশকে শুরু হল। স্বাধীনতার পর আমরা আসলাম, আমরা একরকম গান করলাম তারপর আমাদের পরের জেনারেশন অন্যরকম গান করল। এখন আরও চেঞ্জ হচ্ছে। সারা পৃথিবীতেই চেঞ্জ হচ্ছে। আমি ৮০ এবং ৯০ দশকে যে গানগুলি করেছি সেই গানগুলো কিন্তু এখনো ষ্টেজে উঠলে গাইতে হয় কারণ সেই গানগুলোর রিকোয়েস্ট আসে। কিন্তু এখন যে গানগুলি করছি সেগুলোর রিকোয়েস্ট আসেনা, সেটা আমি জানিনা কেন! তবে দুনিয়ার সাথে সাথে আমাদেরওতো চেঞ্জ আসতে হবে। আমাদের দেশে মনে রাখার মত তেমন নতুন নতুন গান আসছেনা এর একটা কারণ হতে পারে, এখন যে ছেলেমেয়েরা গান করে ওরা গান করতে বসেই পুরনো দিনের গান দিয়ে শুরু করে। ইন্ডিয়ার লতা মুঙ্গেশকরের গান, আশা ভোঁসলের গান, সাবিনা আপার গান, রুনা আপার গান, আমার গান এগুলো করছে। নতুন কোনো গান করছেনা। যার জন্য নতুন গান ওদের গলায় কেমন হবে, সেটাইতো বুঝতে পারছিনা! ওদের নিজেদের গান ক্রিয়েট না করলে সেটা মানুষ কি করে জানবে ঐটা অমুক শিল্পীর গান! বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় আমাদের গান করুক তাতে কোনো আপত্তি নাই কিন্তু রেডিও টেলিভিশনে যখন প্রোগ্রাম করতে আসে এবং যখন সে নিজেকে প্রেজেন্ট করবে আমাদের সামনে তখন তো তাঁদের ঝুড়িতে কি আছে ?সেটা তো আমরা দেখবো, তাইনা! সেই সাবিনা আপার গান, রুনা আপার গান ওগুলো তো নকল করা খুব সোজা! কিন্তু এটা তো ঠিক না। ওরা অনেকেই ভাল গায়। এখন অনেক ভাল ভাল গলা এসেছে কিন্তু ওরা ভয় পায় নতুন গান করতে! কেন জানিনা। আমার খুব অবাক লাগে। অনেক ছেলেমেয়েদের ভাল ভাল গলা আছে কিন্তু ওরা নতুন
গান করছেনা কেন, এই ব্যাপারে আমার প্রচণ্ড আপত্তি আছে। আরেকটা কথা, ভিডিওর কথা বলছেন! গানের সাথে ভিডিও তো অবশ্যই দরকার। এখন সারা পৃথিবীর গানতো ভিডিওর মাধ্যমে চলে এসেছে। এখন এটা যদি আমরা না করি তাহলে তো আমরা অনেক পিছিয়ে যাব। ভিডিও করাকে আমি ভালোভাবেই দেখি। ভিডিও এখন কেন! আজ থেকে পঁচিশ ত্রিশ বছর আগেইতো বিটিভি আমাদের মিউজিক ভিডিও করেছে যেভাবে ভিডিও করে। নৌকায় উঠিয়ে, জাহাজে উঠিয়ে গান করিয়েছে। ওখান থেকেইতো ভিডিও শুরু। এখন তো বিভিন্ন টিভি চ্যানেল করে। তারপর অনেকে ভিডিও করে ইউটিউবেও দেয়। সেটা ভাল। আমি তা অপচ্ছন্দ করিনা। ভাল খুব ভাল।

– আপনাদের সময়ের গানগুলি এখনো মানুষের মনে গেঁথে আছে এবং মুখে মুখে চলছে, এমনকি এখনকার প্রজন্মের ছেলেমেয়েরাও আপনাদের গান গাইছে! অথচ আজকালকার গানগুলি এত প্রচার হচ্ছে, ইউটিউবেও এত্ত এত্ত ভিউয়ার্স কিন্তু আপনাদের সময়ের গানের মত মানুষের মনকে আকৃষ্ট করতে পারছেনা, হিট হচ্ছেনা এবং বছর না ঘুরতেই গানগুলি আর থাকছেনা। এই ব্যাপারে আপনার কি মনে হয় ?
– আসলে আমি জানিনা এখনকার গানগুলি সেইরকম চলছেনা কেন এবং ওরকমভাবে হিট হচ্ছেনা কেন! এখন তো ফিল্মেও কত গান। আমরা যখন ফিল্মে গান করেছি তখন হয়তো ফিল্ম রিলিজ হলেও হলে গিয়ে দেখা হতোনা। হয়তো গানটি কোনোদিন শুনেছি আবার শুনিওনি কোনোদিন কিন্তু গান হিট হয়ে গেছে। কিন্তু এখন যে ফিল্মে গান করছি বা সিডিগুলো বের করছি সাতদিন পরেই আমি টেলিভিশনে দেখতে পাচ্ছি। এত চ্যানেল! গান প্রচারও হয় বিভিন্নভাবে। অথচ গানগুলি হিট হচ্ছেনা কেন ? সেটা আমারও প্রশ্ন। এর উত্তর আমার জানা নেই আসলে। এখন অনেক শিল্পীর গলাও ভাল, সঙ্গীত পরিচালকও ভাল, গান লিখছেও ভাল তারপরেও মানুষের মনে গিয়ে লাগছেনা কেন এর কারণ একটা হতে পারে যেটা, নতুন গান কম তৈরি হচ্ছে। আরেকটি কথা ফিল্মের ধারণা চেঞ্জ হয়ে গেছে তো! এখন যেমন আমার গান – তুমি চেয়েছিলে ওগো জানতে কেন এত ভালো লাগে তোমাদের, আবার বিমূর্ত এই রাত্রি আমার এই ধরণের গান যদি ফিল্মে লাগাতে যান তাহলে পাবলিক মনে হয় উঠে চলে যাবে। যার জন্য গান মানুষের কানে লাগে না বা মানুষকে আকৃষ্ট করেনা।

– আপু, ইদানিং আপনি কি কাজ করছেন ?
– টেলিভিশন চ্যানেল এত বেড়েছে যে, কাজ তো থাকেই। আরটিভিতে তো আছিই। টেলিভিশনের জন্য নতুন গান রেকর্ড করছি। তাছাড়া বিদেশে শো আছে সেগুলোর প্র্যাকটিস করছি। এই আগস্ট মাসেই শো করে আসলাম জার্মানি থেকে।

– পরবর্তীতে দেশের বাইরে কি কোথাও যাবেন ?
– সেপ্টেম্বরে মালয়েশিয়াতে যাব এবং তারপরে ডিসেম্বরে হয়তো আমেরিকাতে যাব।
– গান নিয়ে কি ভবিষ্যতে কিছু করার কোনো পরিকল্পনা আছে আপনার ?
– না, না, ঐরকম কোনো পরিকল্পনা নাই।

– আপু, আপনার অনেক মূল্যবান সময় দেয়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ এবং আপনি আমাদের আরও অনেক সুন্দর সুন্দর গান উপহার দিবেন সেই কামনায় আজকের মত বিদায় নিচ্ছি। শুভকামনা রইল আপনার এবং আপনার পরিবারের জন্য। সঙ্গীতাঙ্গন -এর জন্যও শুভকামনা রইল।

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *