Press "Enter" to skip to content

শুধু গিটার নয়, গান, পিয়ানো শেখানোরও ইচ্ছে আছে…

– সালমা আক্তার।
কন্ঠশিল্পী নিঃসন্দেহে সৃষ্টিকর্তার বড় কৃপার দান। তবে কন্ঠকে সাধা প্রকৃত শিল্পীর প্রধান কাজ। সুন্দর কন্ঠের সংস্পর্শে সৃষ্টি হতে পারে জীবন্ত সংগীত। জীবন্ত সংগীত, সেই সংগীত যা শোনা মাত্রই হৃদয় বলে উঠে আহা কি শুনলাম, একেবারে হৃদয়টা ছুঁয়ে গেল! অপূর্ব সংগীত সৃষ্টির পেছনে কাজ করে অনেক জনের ইচ্ছা ও সাধনা, বিশেষ করে গানের কথা, সুর, সংগীত, বাদ্যযন্ত্রের ব্যবহার সহ শিল্পীর কন্ঠ। সব মিলিয়ে যখন ঠিক ঠিক প্রকাশ ঘটে তখনই সৃষ্টি হয় জীবন্ত সংগীত। জীবন্ত সংগীতের এই ধারা জ্ঞানীর সাধনায় শ্রোতাদের শ্রবণের মাধ্যমে যুগ যুগ ছড়ায়। শুদ্ধ ব্যাকরণ শিখে গান গাওয়াকে প্রাধান্য দিয়ে পার্থ মজুমদার ও পার্থ বড়ুয়া তৈরি করতে যাচ্ছেন গিটার শিখণ স্কুল। যদিও শুরুটা গিটার প্রশিক্ষণ নিয়ে ভাবনা কিন্তু ভাবনাটা ওখানে সীমাবদ্ধ নয় পার্থ মজুমদার ও পার্থ বড়ুয়া জানালেন ইচ্ছেটা আমাদের দু’জনের দীর্ঘ দিনের এখন অবশ্য হঠাৎ করে শুরুর উদ্যোগ নিয়ে ফেলার কথা ভাবছি আমরা। সঠিক ব্যাকরণ শিখে গান শেখায় নতুন প্রজন্মকে উৎসাহিত করতে চাই। আমাদের সময় অনেক কষ্ট করে শিখতে হয়েছে, তাই নতুন প্রজন্ম সহজে শিখতে পাক সে কথা ভেবে, এই উদ্যোগ নেয়া। না শিখে কেউ সংগীত করে সংগীতকে কলংকৃত করুক এটা চাই না।
প্রশিক্ষণের বিষয়ে বলেন আমরা দু’জনেই হাতে কলমে শিখাতে চাই। তবে সেই সাথে ইচ্ছে আছে আরও জ্ঞানী গুণীজনদের, এমনকি আমরা যাদের কাছে শিখেছি, উনাদের এখানে মাঝে মাঝে নিমন্ত্রণ করে নতুনদের জন্য কিছু শিখার ব্যবস্থা করা। শুধু গিটার বাজানো নয়, সেই সাথে গান শেখানো ও পিয়ানো বাজাতে শিখানোকেও ধীরে ধীরে যুক্ত করার ইচ্ছে আছে।
অক্টোবর থেকে শুরু করতে চাই, তবে দু’জনে একত্রে বসে সমস্ত বিষয়টির বিস্তারিত আলোচনা করে নেব যদিও অন্য কাজের ব্যস্ততার জন্য হয়ে উঠছে না। ব্যাস করে শুরু করবো। মোটামুটি বয়সের একটা নীতি থাকবে। ছোটদের একটি বিভাগ, বড়দের জন্য একটি বিভাগ। কিছু শিখিয়ে যেতে পারলে জীবনটা সার্থক হবে। বয়সে বড় ছোট সবাইকে স্বাগতম যারা শুদ্ধ উপায়ে শিখে এগিয়ে যেতে চায়। প্রত্যাশা সংগীত আন্দোলন বয়ে আনুক মানুষের জীবনে।

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *