Press "Enter" to skip to content

বিশ্ব সেরা ভালোবাসার গান…

– মোশারফ হোসেন মুন্না।
বিশ্বব্যাপী বিখ্যাত অনেক শিল্পী গানে গানে প্রেমের জয়গান গেয়েছেন। সেসব গান প্রেমিক-প্রেমিকাদের ভালোবাসার পথে এগিয়ে যেতে অনুপ্রেরণা জুগিয়েছে। প্রেমের সেরা গান নিয়ে প্রতিবেদন। –

* সর্বকালের সেরা প্রেমের গানের তালিকার শীর্ষে আছে হুইটনি হাউস্টনের গাওয়া ‘আই উইল অলওয়েজ লাভ ইউ’। ১৯৯২ সালে ‘দ্য বডিগার্ড’ ছবির জন্য গানটিতে কণ্ঠ দেন তিনি। বলাবাহুল্য, সেটি ছিল তার অভিনীত প্রথম ছবি। যদিও ১৯৭৩ সালে গানটি লিখেছিলেন বিখ্যাত আরেক গায়িকা ডলি পার্টন এবং তিনিই ১৯৭৪ সালে গানটি প্রথম গেয়েছিলেন। তবে হুইটনির গায়কীতেই শ্রোতারা এটি বেশি শুনেছে। গানটি টানা ১৪ সপ্তাহ ধরে বিলবোর্ডের শীর্ষে ছিল। ২০১২ সালে হুইটনির মৃতুর পর গানটি আবারও শীর্ষে আসে।
* রক এন রোলের রাজা এলভিস প্রিসলি তার ‘লাভ মি টেন্ডার’ গানটি ১৯৫৬ সালের ৯ সেপ্টেম্বর প্রথম ‘দ্য এড সুলিভ্যান শো’ অনুষ্ঠানে পরিবেশন করেন। আর তাতেই আরসিএ রেকর্ডস ১০ লাখ কপি অগ্রিম সরবরাহের অনুরোধ পায়। এই বিপুল জনপ্রিয়তা দেখে টোয়েন্টিয়েথ সেঞ্চুরি ফক্স তাদের ‘দ্য রেনো ব্রাদারস’ ছবির নাম পাল্টে রাখে ‘লাভ মি টেন্ডার’। ভেরা ম্যাটসনকে নিয়ে এটি লিখেছিলেন প্রিসলি। তবে গানের কথা মূল ভাবনা ভেরার স্বামী কেন ডার্বির।
* কানাডিয়ান গায়িকা সেলিন ডিওনের ‘লেটস টক অ্যাবাউট লাভ’ এ্যালবামের গান ‘মাই হার্ট উইল গো অন’ ১৯৯৭ সালে জার্মানি ও অস্ট্রেলিয়ায় আর ১৯৯৮ সালে বিশ্বব্যাপী প্রকাশ হয়। গানটি লিখেছেন উইল জেনিংস, সুর করেছেন জেমস হর্নার। সর্বকালের সর্বাধিক বিক্রীত একক গানের মধ্যে অন্যতম। সর্বকালের সেরা ব্যবসা সফল ছবিগুলোর মধ্যে অন্যতম ‘টাইটানিক’ -এর মূল গান হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে গানটি।

* বিশ্বখ্যাত শিল্পী এরিক ক্ল্যাপটনের ‘ওয়ান্ডারফুল টুনাইট’ গানটি সর্বকালের সেরা ১০ গানের মধ্যে চতুর্থ। এটি ১৯৭৭ সালে প্রকাশিত ‘স্লোহ্যান্ড’ এ্যালবামের গান। প্যাটি বয়েডকে নিয়ে এটি লেখেন ক্ল্যাপটন। ২০০৭ সালে প্রকাশিত ‘ওয়ান্ডারফুল টুনাইট : জর্জ হ্যারিসন, এরিক ক্ল্যাপটন অ্যান্ড মি’ নামের আত্মজীবনীমূলক গ্রন্থে প্যাটি এ তথ্য জানান।
* ১৯৬৯ সালে বিখ্যাত ব্যান্ড বিটলস ভেঙে যাওয়ার প্রাক্কালে কঠিন সময় পাড়ি দিচ্ছিলেন এর অন্যতম সদস্য পল ম্যাকার্টনি। ওই সময়ে তাকে সাহস জোগান স্ত্রী লিন্ডা। তাই তাকে নিয়ে ম্যাকার্টনি লিখে ফেলেন ‘মে বি আই অ্যাম অ্যামেজ্ড’ গানটি। ১৯৭০ সালে তা প্রথম প্রকাশ হয়।
* বন জভি’র ‘ক্রস রোড’ এ্যালবামে অলওয়েজ গানটি মুক্তি পায় ১৯৯৪ সালে। যুক্তরাষ্ট্রে ১ মিলিয়নসহ সারা বিশ্বে মোট ৪ মিলিয়ন কপি বিক্রি হয়। মূলত ১৯৯৩ সালে ‘রোমিও ইজ বি্লডিং’ চলচ্চিত্রের জন্য গানটি লেখা হয়েছিল।
* ‘ভিসন কুইস্ত’ চলচ্চিত্রের জন্য ১৯৮৫ সালে ম্যাডোনা গান ক্রেজি ফর ইউ গানটি, পরে বিভিন্ন এ্যালবামেও গানটি জায়গা করে। গানটি বিলবোর্ডে শীর্ষস্থান দখল করে এবং এর জন্যই ম্যাডোনা সর্বপ্রথম গ্র্যামি মনোনয়ন পায়।
সঙ্গীতাঙ্গন এর সাথে থাকুন, আর জানুন সঙ্গীতের নানা খবর। ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন শুভ কামনা। – চলবে…

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *