Press "Enter" to skip to content

ক্যান্সারকে জয় করে ফের পলি গানে…

– মোশারফ হোসেন মুন্না।
জীবন যখন কোথাও গিয়ে থমকে যায়, সামনে চলার মত রাস্তা না থাকে, তখন মনে হয়, পৃথিবীটা যেন নিজের কাছে সঙ্কীর্ণ হয়ে গেছে। পৃথিবীটাকে যতই আপন করতে চাই পৃথিবীটা যেন ততই আমাকে পড় করে দেয় । পৃথিবীর মানুষগুলো যারা চিরপরিচিত তারাও যেন অপরিচিত হয়ে যায়। তখন বোঝা যায় পৃথিবী থেকে বুঝি আমার চলে যাবার সময় এসে গেছে। পৃথিবী বলছি আমাকে আর তার বুকে ধরে রাখতে চায় না। জীবনটা যেন নিজের কাছেই অসহায় হয়ে যায়। মৃত্যুর সাথে তখন আলিঙ্গন করতে ইচ্ছে হয় না। ইচ্ছে হয় আর কিছুটা দিন থেকে যায় না। আরো কত কিছু দেখার আছে কত কিছুই জানার আছে। কিন্তু মৃত্যু যদি দ্বারপ্রান্তে এসে যায় তখন সব ইচ্ছা মৃত্যুর কাছে হার মেনে যায়। কিন্তু পরক্ষণেই যদি জীবনটা আবার আমাদেরকে ঘুরে দাঁড়ায় বাঁচার স্বপ্ন দেখায়। আবার নতুন করে সবাইকে আপন করে নিতে চায়। এর চাইতে বড় আনন্দ মনে হয় না পৃথিবীতে আরো কিছু আছে। হয়তো ভাবছেন এত বনিতা করতেছি কি কারনে। আপনারা হয়তো সবাই চিনেন বাংলাদেশের বাংলা গানের জনপ্রিয় শিল্পী ডলি সায়ন্তনী এর বোন পলি সায়ন্তনীকে। দেশীয় বাংলা গানের জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী পলি সায়ন্তনী। দেশীয় সঙ্গীত অঙ্গনের একজন মেধাবী গায়িকা পলি সায়ন্তনী বেশ কিছু দিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন। সম্প্রতি উন্নত চিকিৎসার জন্য ভারত গিয়েছিলেন তিনি। সেখানকার ডাক্তাররা তার শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন। বর্তমানে তার শরীরে ক্যান্সারের কোন জীবাণু নেই বলে জানিয়েছেন ডাক্তাররা। এখন তিনি অনেকটাই ভাল বোধ করছেন। পলি তার চিকিৎসায় আর্থিক সাহায্য করার জন্য গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।
পাশাপাশি আরও যারা তার পাশে ছিলেন তাদের প্রতিও বিশেষ কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন। সুস্থ হয়ে আবারও গানে ফেরার প্রস্তুতি নিচ্ছেন তিনি। আবারও গানে নিয়মিত হতে চান সুরেলা কণ্ঠের এই প্রতিভাময়ী শিল্পী।
অত্যন্ত মেধাবী শিল্পী পলি সায়ন্তনী গত দুই বছর ধরে মরণব্যাধি ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন। গত দুই বছর আগে তার ক্যান্সার ধরা পড়ে। তারপর থেকেই নিয়মিত চিকিৎসা নেন তিনি। পলি সায়ন্তনী বলেন, কিছু মানুষ আবার তার বিপদে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। কিছু মানুষ আমাকে একেবারে অবাক করে দিয়েছেন। যাদের কাছে আমার কোন প্রত্যাশা নেই তারা আমার পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন। সঙ্গীত জগতের বেশ কয়েকজন আমাকে আর্থিকভাবে সাহায্য করেছেন। আমার চিকিৎসার খোঁজ খবর নিয়েছেন। আমার বেশ কয়েকজন বন্ধু ফেসবুকে গ্রুপ খুলে ও রাস্তায় গিয়ে টাকা তুলে আমাকে সাহায্য করেছে। এই ঋণ কী দিয়ে শোধ করা যায় আমি জানি না।
কয়েকজন অল্প পরিচিত শিল্পী ও সহকর্মী আমাকে সাহায্য করেছেন। পলি সায়ন্তনী বলেন, আমার বোন ও দুলাভাই অনেক কিছু করছেন আমার জন্য। আমি তাদের ধন্যবাদ জানাই। বিশেষ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আমি চির ঋণী। তিনি আমার চিকিৎসার জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। মহান আল্লাহ তাকে ভাল রাখুন, সুস্থ রাখুন, আরও বহুদিন দেশের মানুষের সেবা করার সুযোগ দিন। মৃত্যুর পথযাত্রী কোন মানুষ যদি আবার বেঁচে যায় তাহলে তার চাইতে অধিক সুখী আর কেউ নেই। অনেক অনেকদিন বেঁচে থাকুক সংগীতের এই মানুষটি সংগীতের সাথে। সঙ্গীতাঙ্গনের পক্ষ থেকে জানাই শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *