চিটাগাং ভাইকিংস এর থিম সং এ অন্যরকম আনন্দ উৎসব…

ক্রিকেটকে নিয়ে উৎসাহ ও সম্ভাবনায় মেতে উঠেছে বাংলাদেশ। আমাদের দেশের ক্রিকেট এর সফলতার সাথে মিশে আছে এ দেশের সঙ্গীত তারকারা। বাংলাদেশ আইসিসি ট্রফি জেতার মধ্যে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করার ঘটনাকে কেন্দ্র করে জনপ্রিয় গায়ক শুভ্রদেব এর গেয়েছিলেন ‘গুডলাক বাংলাদেশ গুডলাক’ এই গানটি ক্রিকেট খেলোয়াড়দের অনেক প্রেরণা দিয়েছিলেন। পরবর্তীতে আসিফ আকবর এর গাওয়া ‘সাবাস বাংলাদেশ’ গানটি খেলোয়াড় এবং ক্রিকেট প্রেমীদের অনেক উৎসাহিত করেন। এরপর আরফিন রুমির ‘জ্বলে উঠো বাংলাদেশ’ ও ফুয়াদের সুরে ‘চার ছক্কা হৈ হৈ’ গানটি সবাইকে আনন্দিত করেন। আজ তারই ধারাবাহিকতায় ক্রীয়াঙ্গন যেখানে সঙ্গীত সেখানে। খেলার সাথে সাথে সুরেও মেতে উঠে সবাই।
বিপিএল ২০১৫ কে ঘিরে টিম ভিত্তিক গড়ে উঠেছে সঙ্গীত উৎসব। ‘চিটাগাং ভাইকিংসের’ থিম সং এ দারুন চমক নিয়ে এসেছেন দেশের অন্যতম জনপ্রিয়
গায়ক কুমার বিশ্বজিৎ। চলিত এবং আঞ্চলিক ভাষায় চমৎকার ভাবে এ গানটি লিখেছেন সুনামধন্য গীতিকার কবির বকুল। কবির বকুল আমাদের সঙ্গীতাঙ্গন
প্রতিনিধিকে এ গানের বিষয়ে অনুভূতি ব্যক্ত করে বলেন, সঙ্গীত এবং খেলাকে আমরা সবাই ভালোবাসি। চিটাগাং এর নিজস্ব একটি আঞ্চলিক ভাষা আছে আমি
চেষ্টা করেছি গানটি সুন্দর করে সাজাতে।
“উড়াইয়া উড়াইয়া মারোরে
ধুম ধাড়াক্কা মারোরে”
এমনই সুন্দর কথা মালায় গানটির সুর সঙ্গীত করেছেন ইবরার টিপু। ইতিমধ্যে গানটির ভিডিও প্রকাশ পেয়েছে এবং মুগ্ধ করেছে দর্শক শ্রোতাদের। গানটির ভিডিও নির্মাণ করেছেন বিশিষ্ট নির্মাতা আফজাল আহমেদ। অন্যদিকে চিটাগাং ভাইকিংস এর জন্য আরও একটি থিম সং করেছেন এ প্রজন্মের দুই তারকা কিশোর ও ঐশী।
“ধুম ধারাক্কা ধুম ধুম
ধুম ধারাক্কা ধুম ধুম,
ধুম ধারাক্কা ধুম ধুম ধুম
চিটাগাং ভাইকিংস
এবার ভাঙবে সবার ঘুম।
জনপ্রিয় সঙ্গীত পরিচালক ইমন সাহার সুর ও সঙ্গীতায়োজনে গানটি লিখেছেন এ প্রজন্মের জনপ্রিয় গীতিকার রবিউল ইসলাম জীবন। চিটাগাং ভাইকিংস টিম এবং থিম সং এর সকল আয়োজকদের প্রতি রইলো শুভকামনা।
অলংকরন – মাসরিফ হক…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: